সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৬ অপরাহ্ন

অগ্রযাত্রার ৮ বছর : ব্রা‏হ্মণপাড়ায় এলজিইডি’র বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যক্রম অব্যাহত

সীমা চন্দ্র নম: কুমিল্লা থেকে :

অগ্রযাত্রার ৮ বছর। ২০০৯ থেকে ২০১৬ সাল এ বছরগুলোতে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন অধিদপ্তরের মাধ্যমে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন এবং উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন অধিদপ্তরগুলোর মধ্যে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর মাধ্যমে দেশের গ্রামাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। গ্রামীন যোগাযোগ, বিদ্যুৎ উৎপাদন, শিল্পসহায়ক অবকাঠামো নির্মাণসহ শিক্ষার আধুনিকরণ, কমিউনিটি ক্লিনিক পুনরুজ্জীবন, গ্রামীণ স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মানোন্নয়নসহ সরকারের আরও অনেক কর্মসূচী বাংলাদেশকে দ্রুত বদলে দিচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ দারিদ্র্য দেশ থেকে নিম্ন মধ্য আয়ের দেশে পরিনত হয়েছে। বাংলাদেশের লক্ষ এখন ২০২১ সালে মধ্য আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশ হিসেবে বিশ্বে আত্মপ্রকাশ করা। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৮ বছরে কুমিল্লা জেলার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় মোট ৯১.৩৪ কিলোমিটার পল্লী সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এ কাজে মোট ৪৮.৮৫ কোটি টাকা ব্যায় করা হয়েছে। বর্তমানে ২২.৯৪ কিলোমিটার সড়কের কাজ চলমান আছে। চলমান প্রকল্পগুলোর মাধ্যমে আগামী দু’বছরে আরো প্রায় ৭২ কিলোমিটার সড়ক নির্মিত হবে।

ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার মোট ৫৯.০২ কিলোমিটার পল্লী সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়েছে। এ কাজে মোট ৩৫.৫৫ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। বর্তমানে ৯.১৯০ কিলোমিটার সড়ক রক্ষণাবেক্ষণের কাজ চলমান রয়েছে। গত ৮ বছরে উপজেলার মোট ৫৮ মিটার দৈর্ঘ্যের ৬টি সেতু/কালভার্ট নির্মান করা হয়েছে। এ কাজে ৪.০৮৭ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। বর্তমানে ১৬ মিটার কালভার্টের কাজ চলমান রয়েছে। আগামী দু’বছরে আরও ৮৫ মিটার ২টি সেতু নির্মাণ করা হবে। যার ব্যায় হবে ১০ কোটি টাকা। ২০০৯-২০১৬ সালের মধ্যে ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স নির্মাণ/ সম্প্রসারণসহ ১টি ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে। এতে মোট ০.৬৩ কেটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। আগামী দু’বছরে আরও ৫টি ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, ১২টি হাটবাজার/মাঠ নির্মাণ করা হবে। গত ৮ বছরে উপজেলার ৯টি নতুন প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, ৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষ সম্প্রসারণ এবং উপজেলা রিসোর্স সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে। এতে মোট ১৪.৪৩ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। বর্তমানে ৩টি বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে।

চলমান প্রকল্পের মধ্যে আগামী দু’বছরে আরও ২৫টি বিদ্যালয় নির্মাণ/সম্প্রসারণ করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পুন:প্রতিষ্ঠা এবং তা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে জেলা উপজেলাসহ দেশের প্রতিটি উপজেলায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন যা এলজিইডি বাস্তবায়ন করছে। এতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য জাদুঘর কাম লাইব্রেরী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের অফিস, মুক্তিযোদ্ধা মার্কেটসহ ৭৫০০ বর্গফুটের ভবন তৈরি করার কার্যক্রম এগিয়ে চলছে। পাঁচতলা ভিত্তির এ ভবনটিতে আপাতত তিন তলা পর্যন্ত ভবন নির্মাণ করা হবে। এতে ২.০৭ কোটি টাকা ব্যয় হচ্ছে। এর পাশাপাশি অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দেশের ৪৮৪টি উপজেলার ২৯৭১টি বাসগৃহ নির্মাণ করা হচ্ছে।

ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলায় ৯টি বাসগৃহ ইতোমধ্যে নির্মাণ করা হয়েছে এবং ৪টি নির্মানাধীন আছে। এছাড়া সরকার উন্নত দেশগুলোর আদলে সারা দেশে ইলেকট্রনিক টেন্ডারিং চালু করেছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে এটি একটি বড় উদ্যোগ। এ কর্মসূচীর অংশ হিসাবে সারাদেশে এলজিইডি’র ৯৬ শতাংশ টেন্ডার ইলেকট্রনিং টেন্ডারিং (ই-জিপি) এর মাধ্যমে সম্পন্ন হচ্ছে। এছাড়াও নারীদের উন্নয়নে সরকার নিরলশ কাজ করে যাচ্ছে। দারিদ্র্য মুক্তির পাশাপাশি নারীর ক্ষমতায়নে এলজিইডির ৬টি প্রকল্প কাজ করছে। এসব প্রকল্পের আওতায় প্রায় ২০ লাখ নারী বিভিন্নভাবে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করছে।

সরকারের এ সাফল্য অব্যাহত রাখতে ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ সাইফুল ইসলামসহ এ দপ্তরের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com