মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন

আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে হার্ডলাইনে পুলিশ : সপ্তাহের ব্যবধানে ১১ জন চিহ্নিত ছিনতাইকারী আটক

প্রতিকী ছবি

আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে হার্ডলাইনে পুলিশ : সপ্তাহের ব্যবধানে ১১ জন চিহ্নিত ছিনতাইকারী আটক

আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে হার্ডলাইনে পুলিশ : সপ্তাহের ব্যবধানে ১১ জন চিহ্নিত ছিনতাইকারী আটক

রাশেদ রিপন, কক্সভিউ:

পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে শহরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ছিনতাইকারী ধরতে হার্ডলাইনে নেমেছে পুলিশ। ছিনতাইকারীদের তালিকা নিয়ে শহরজুড়ে কড়া অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। ১সপ্তাহের ব্যবধানে সদর থানা পুলিশের জালে আটকা পড়েছে শহরের তালিকাভুক্ত ১১ চিহ্নিত জন ছিনতাইকারী। এই অভিযানের ফলে গা ঢাকা দিয়েছে চিহ্নিত ছিনতাইকারীরা। এর ফলে শহরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সচেতন মানুষ।

সদর মডেল থানার অপারেশন অফিসার কাইয়ুম উদ্দিন চৌধুরী জানান, ঈদকে সামনে রেখে শহরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযান সফল করার জন্য ছিনতাইকারীদের একটি তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। এই তালিকা ধরে ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে কড়া অভিযান চলছে। এর অংশ হিসেবে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে সদর মডেল থানা পুলিশ ১১ জন চিহ্নিতকারী আটক করেছে। যাদের বেশিরভাগেরই কয়েকটি মামলার আসামী।

তিনি আরো জানান, ১৪ সেপ্টেম্বর শহরের বিভিন্ন জায়গা অভিযান চালিয়ে ৫জনকে আটক করা হয়। এরা হলেন, বৈদ্যঘোনা এলাকার খোরশেদ আলমের পুত্র মোর্শেদ আলম (২১), ঈদগাও ফরাজি পাড়া এলাকার নুরুল ইসলামের পুত্র রাসেল (২৩), শহরের নতুন বাহারছড়া এলাকার নুরুল আলমের পুত্র রবিউল হোসেন রবি (২৪), চকরিয়া বানিয়ারছড়া এলাকার বেলালের পুত্র সুমন (১৭), টেকপাড়া সিকদার মহল এলাকার এরফানুল ইসলামের পুত্র নয়ন।

এছাড়া ১৫ সেপ্টেম্বর ২জন ছিনতাইকারী আটক করা হয়। এরা হলেন, শহরের সমিতি পাড়া এলাকার হারুনুর রশিদের পুত্র সিকান্দার আবু জাফর হিরু (৩২) ও মহেশখালী সাতঘরিয়া পাড়া এলাকার গুনু মিয়ার পুত্র খোরশেদ আলম (২৫)।

একইভাবে ১৬ সেপ্টেম্বর আটক করা হয় ঈদগাও গোমাতলী এলাকার নুরুল হুদার পুত্র মিজানুর রহমান (২৯)।

১৭ সেপ্টেম্বর আটক করা হয় শহরতলীর বিসিক শিল্প নগরীর মুহুরী পাড়া এলাকার মৃত মকতুল হোসেনের পুত্র আবুল বশর (৪২), মোহাজের পাড়া এলাকার মোহাম্মদ ইউছুফের পুত্র সাইফুল ইসলাম (১৮) ও বাহারছড়া এলাকার নুরুল আলমের পুত্র নাইমুল হুদা।

এদিকে একের পর এক অভিযান চললেও এখনো বেশকিছু ছিনতাইকারী বেপরোয়াভাবে চালিয়ে যাচ্ছে। শহরের বাহারছড়া, টেকপাড়া, গরুর হালদা, পাহাড়তলী, পেশকারপাড়া, সাহিত্যিকা পল্লী, বাসটার্মিনাল, হোটেল মোটেল জোনসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় নিয়মিত ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

ঈদ ও পর্যটন মৌসুমকে সামনে রেখে পুলিশের কড়া অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়ে কক্সবাজার সদর কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি এডঃ সৈয়দ রেজাউর রহমান বলেন, এই অভিযান আরো জোরদার করতে হবে। বিশেষ করে শহরের যেসব পয়েন্টে ছিনতাইয়ের উপদ্রব বেশি সেখানে পুলিশের নজরদারী বাড়াতে হবে। এই অভিযানে কমিউনিটি পুলিশের পক্ষ থেকে সদর থানা পুলিশকে সার্বক্ষণিক সহযোগীতা করে বলে জানান তিনি।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আসলামুল ইসলাম জানান, ঈদকে সামনে রেখে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কড়া অভিযান চলছে। নিয়মিত টহল পুলিশের পাশাপাশি শহরজুড়ে কয়েকটি সিভিল টিমও কাজ করছে। এই অভিযান পর্যটন মৌসুম পর্যন্ত চলবে বলে জানান তিনি।

https://www.facebook.com/coxview

Design BY Hostitbd.Com