বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন

ইসলামপুর বি.আলম স: প্রা: বিদ্যালয়ের ভবন নেই : ব্যাহত শ্রেণী কার্যক্রম

মোহম্মদ রফিকুল ইসলাম; লামা :

ধ্বংসের শেষপ্রান্তে দাঁড়িয়ে কালের সাক্ষী হয়ে আছে বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার আজিজনগর ইউনিয়নের ইসলামপুর বিআলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি। ১৯৯৭-৯৮ সালে এলজিইডি কর্তৃক নির্মিত তিন রুমের একমাত্র ভবনের সব কয়টি কক্ষই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়ার ভয়ে কখনও স্কুল মাঠে আবার কখনও পাশের সমিতি ঘরে চলে বিদ্যালয়ের শ্রেণী কার্যক্রম। শুধুমাত্র অবকাঠামো সংকটের কারণে বিদ্যালয়ে ভর্তি হচ্ছেনা ছাত্র-ছাত্রী।

জানা গেছে, ১লা জানুয়ারী ১৯৮৮ইং সালে বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়। আজিজনগরের বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব মোঃ নাজেমুল ইসলাম চৌধুরী বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে শ্রেণীকক্ষ, আসবারপত্র, পানীয়জল ও পয়নিষ্কাশনের চরম সমস্যার কারণে বন্ধের উপক্রম হয়েছে স্কুলটি।

বিদ্যালয়ের কয়েকজন অভিভাবক মোস্তাক আহমদ, জোস্না বেগম, হোসনে আরা বেগম ও আব্বাস আহমদ সাথে কথা বলে জানা যায়, অবকাঠামো ও আসবারপত্রের সমস্যার কারণে দুই বছর আগে বন্ধ হয়ে যায় বিদ্যালয়টি। ১৫ মার্চ ২০১৫ইং বিদ্যালয়ের বর্তমান প্রধান শিক্ষক নুরুল আবছার যোগদানের পর থেকে এলাকার সকলের হাতে পায়ে ধরে তাদের ছেলে-মেয়ে ভর্তি করতে অনুরোধ জানায়। প্রধান শিক্ষক সহ সহকারী শিক্ষকদের আন্তরিকতা দেখে আমরা ছেলে-মেয়ে ভর্তি করায়। ২০১৬ সালের পিএসসি পরীক্ষায় বিদ্যালয় থেকে ৯জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে ৭জন এ-প্লাস ও ২জন এ গ্রেডে পাস করে। এবছর বিদ্যালয়ের ভাল ফলাফল দেখে এলাকার সকলে তাদের ছেলে-মেয়ে ভর্তি করায়। বর্তমানে ইসলামপুর বিআলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৮৩জন। শ্রেণীকক্ষ না থাকায় বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি সমিতির ঘরে কখনও মাঠে চলে শ্রেণী কার্যক্রম। আমরা দ্রুত বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে সরকার ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি’র হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক নুরুল আবছার একান্ত আলাপকালে জানান, করুণ পরিস্থিতি বিদ্যালয়টির। লামা উপজেলার সবচেয়ে সুবিধাবঞ্চিত বিদ্যালয় আমার স্কুল। বিদ্যালয়ের নামটি আছে নেই ভবন। কখনও খোলা আকাশের নিচে আবার কখনও পাশের সমিতির ঘরে চলে পাঠদান।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি বশির আহমদ বলেন, বিদ্যালয়ের নানান সমস্যার কথা অনেকবার উপজেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা শিক্ষা অফিস ও জনপ্রতিনিধিদের জানানো হয়েছে। সকলে আশ্বাসের বাণী শুনিয়েছেন। আর ভরসা পেতে চাইনা বিদ্যালয় ভবন চাই।

লামা উপজেলা শিক্ষা অফিসার যতীন্দ্র মোহন মন্ডল বলেন, আমরা সদ্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর হতে লামা উপজেলায় ৭টি বিদ্যালয়ের নতুন ভবন হওয়ার চিঠি পেয়েছি। চাহিদা প্রেরণের সময় ইসলামপুর বিআলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নাম সবার আগে দেয়া হলেও কিভাবে যেন নামটি বাদ পড়েছে। নতুন ভবনের তালিকায় ইসলামপুর বিআলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম সংযুক্ত করতে এলজিইডি’র সাথে আলোচনা চলছে।

লামা উপজেলা প্রকৌশলী মোবারক হোসেন জানান, বিদ্যালয়টি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। উপজেলা শিক্ষা কমিটির আগামী মাসিক মিটিংয়ে ইসলামপুর বিআলম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা করা হবে।

লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু এই প্রতিবেদককে জানান, বিষয়টি আমি জানতাম না। খোঁজ খবর নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com