Home / প্রচ্ছদ / উন্নয়ন ও রাজনীতির প্রাধান্যেই মোস্তফা-মুজিবের জয়রথ

উন্নয়ন ও রাজনীতির প্রাধান্যেই মোস্তফা-মুজিবের জয়রথ

Sirajul Mostafa & Mozibur-3এম.আর মাহবুব; কক্সভিউ:

উন্নয়ন ও রাজনীতি দু’দিককে প্রাধান্য দিয়ে কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতৃত্ব। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের মেগা প্রকল্পের তীর্থ কেন্দ্র মহেশখালীর কৃতি সন্তান এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফাকে সভাপতি এবং কক্সবাজার শহরের সরকার দলীয় রাজনীতির প্রাণপুরুষ মুজিবুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে বেছে নিয়েছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে করে সরকার মহেশখালী আইল্যান্ডকে কেন্দ্র করে গৃহীত উন্নয়ন প্রকল্প নিষ্কন্ঠক করার পাশাপাশি কক্সবাজারের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণের বাস্তব সম্মত পদক্ষেপ বলে মনে করেন কক্সবাজারের সচেতন রাজনৈতিকবোদ্ধারা।

সূত্র জানায়, মহেশখালী আইল্যান্ডকে উপলক্ষ করে সরকার দ্বিতীয় সিঙ্গাপুর করার মাষ্টার প্ল্যান গ্রহণ করেছে। আগামী কয়েক বছরে কয়েকটি মেগা প্রকল্পে লক্ষাধিক কোটি টাকার বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। চলমান মাতারবাড়ি তাপ বিদ্যুত্ কেন্দ্রে জাপানী সহায়তায় ৩৪ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার। একই সাথে মহেশখালী দ্বীপে প্রস্তাবিত একাধিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণের মাধ্যমে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত্ উত্পাদনের টার্গেট নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি মহেশখালীতে প্রস্তাবিত লিকুইট ন্যাচারাল গ্যাস প্লান্টে ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ হাজার কোটি টাকা। এর সাথে মহেশখালীতে চারটি ইকোনমি জোন গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়ে সরকার এগুচ্ছে। এতে থাকছে ফ্রি ট্রেড জোন, ইন্ডাষ্ট্রিয়াল জোন। এর সাথে মহেশখালীর সোনাদিয়ায় ৫৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের উন্নয়ন পরিকল্পনা নিয়ে সরকার জোরে সোরে সামনে এগুচ্ছে।

সূত্র জানায়-মহেশখালীকে কেন্দ্র করে সরকারের স্বপ্নের এবং ইমেজের এসব মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে মহেশখালীর সন্তান ও যোগ্য লোকের খুঁজে ছিল আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব। শেষ পর্যন্ত ব্যক্তিগত ইমেজ, পরিচ্ছন্ন ব্যাক গ্রাউন্ড ও মহেশখালীর মৃত্তিকার সন্তান হিসেবে আওয়ামীলীগের হিসেবের যোগফলে মিলে যাওয়ায় কপাল খুলে যায় মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফার। অন্যদিকে ভোটের হিসেবে বিএনপি-জামায়াত অধ্যুষিত কক্সবাজারে দীর্ঘ দু’যুগ ধরে পর্যটন শহরে আওয়ামীলীগের দুঃসময়, সু-সময়ের কান্ডারী বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ত্যাগী ও পরীক্ষিত মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান। আন্দোলন, সংগ্রামের অকুতোভয় জননেতা মুজিবের বিকল্প কক্সবাজারে যারা ছিলেন তারা পাশ নাম্বারে অনেক পিছিয়ে। মূলতঃ মহেশখালীর মেগা প্রকল্পের উন্নয়ন তরান্বিত ও নিষ্কন্ঠক করতে, সর্বোপরি কক্সবাজারের রাজনীতির মাঠ নিয়ন্ত্রণের যোগ্য নেতৃত্ব হিসেবে এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা এবং মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যানই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গুড বুকে। এরই বাস্তব প্রতিফলন ঘটেছে এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা ও মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যানের সভাপতি/সম্পাদকের মর্যাদাকর প্রাপ্তিতে।

%d bloggers like this: