Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / কুতুবদিয়া আ’লীগের উদ্যোগে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

কুতুবদিয়া আ’লীগের উদ্যোগে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

26 march

নিজস্ব প্রতিনিধি; কুতুবদিয়া :

২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ আ’লীগ কুতুবদিয়া উপজেলা শাখা ও সহযোগী সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভা বিকাল ৩টায় ঐতিহ্যবাহী কুতুবদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা আওরঙ্গজেব মাতবরের সভাপতিত্বে ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রস্তাবিত উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলাম (লালা) এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুচ্ছাফা বি.কম। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ’লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সহ-সভাপতি হাজী মুহাম্মদ তাহের, মাহাবুবুল আলম মাতবর, সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট কামাল উদ্দিন, সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট এ.ইউ.এম জিল্লুল করিম, উপজেলা আ’লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম, বড়ঘোপ ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আবুল কালাম এম ইউপি, বড়ঘোপ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম, সাবেক কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সদস্য ও কুতুবদিয়া ছাত্রলীগের এইচ.এম সাজ্জাদ প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কুতুবদিয়া উপজেলা আ’লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু ইউছুফ মাতবর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক মোঃ শাহাজাহান সিকদার, মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, পুলিন বিহারী, কৈয়ারবিল ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আজমগীর মাতবর, সাধারণ সম্পাদক মুসলেম খাঁন, আ’লীগ নেতা নাজেম উদ্দিন লালা, মনজুর আলমসহ দলীয় ও সহযোগী সংগঠনের অসংখ্য নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আওরঙ্গজেব মাতবর বলেন, ১৯৭১ সালে ঠিক আজকের এই দিনে প্রাক-হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বীর বাঙ্গালিরা মাতৃভূমি রক্ষার জন্য স্বশস্ত্র যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে ১৬ ডিসেম্বর দীর্ঘ ৯ মাস পর বীর বাঙ্গালীরা চুড়ান্ত বিজয় অর্জন করেন। ফলে বাঙ্গালী জাতি উপহার স্বরুপ পায় পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশ নামক একটি মানচিত্র ও লাল সবুজের পতকা। স্বাধীনতার পরও স্বাধীনতা বিরোধী চক্ররা এদেশে রয়ে গেছে, এরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে বাংলাদেশকে ধ্বংস করার ষড়যত্রে লিপ্ত রয়েছে। যার প্রমাণ হিসেবে স্বাধীনতার আড়াই বছরের মাথায় বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্ব-পরিবারে হত্যা করেছে। এরা জাতির পিতাকে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি।

২২ মার্চ ইউপি নির্বাচনে প্রশাসনে ঘাপটি মেরে থাকা স্বাধীনতা বিরোধী চক্ররা স্বাধীনতার প্রতিক নৌকা প্রার্থীদের সরাসরি অবস্থান, মারধর, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের জেল জরিমানা করে যে নিন্দনীয় কাজ করেছে তাদেরকে প্রতিহত করতে হবে। পাশা-পাশি দলীয় নেতাকর্মীদের এ সব স্বাধীনতা বিরোধী চক্রদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।

এর আগে দলটি বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী রাত ১২টা ১ মিনিটে কুতুবদিয়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন।

%d bloggers like this: