শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ন

খুরুশকুলে সন্ত্রাসী হামলায় দিনমজুর গুরুতর আহত : থানায় অভিযোগ দায়ের

ahota-ajit-himu-04-11-16-news-1pic

অজিত কুমার দাশ হিমু, কক্সভিউ :

কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নের কাউয়ার পাড়া এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন দিনমজুর ও তার পরিবার। ৩ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আগত দিনমজুর সাকের আলম খুরুশকুল কাওয়ার পাড়া এলাকার মোঃ আবদুল­াহর ছেলে। এ ঘটনায় আহত সাকের আলম এর স্ত্রী বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগও দায়ের করেছেন।

দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ৩ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নের কাউয়ার পাড়ার পশ্চিম পার্শ্বে বশির পাড়ার বশির আলম এর ছেলে সন্ত্রাসী আবদু শুক্কুর, একই ইউনিয়নের হাটখোলাপাড়ার মৃত কবির আহমদ এর ছেলে আবুল হোসেন, মামুনপাড়ার মোহাম্মদ এর ছেলে ভুট্টো, মনির আহমদ, কাউয়ার পাড়ার বদরুর ছেলে মিজান এর নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা ১০/১২জন সন্ত্রাসী বাহিনী পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দারালো অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দিনমজুর সাকের আলম এর বাড়ীতে এসে তাকে ডাকাডাকি করে। এসময় তাদের ডাকাডাকিতে সাকের আলম ঘরের বাইরে এলে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে ওই আবদু শুক্কুর গংদের হাতে থাকা লাঠি সোটা দিয়ে বেদারক মারতে মারতে মাটিতে ফেলে লাথি, কিল, ঘুষি ও লাঠি দিয়ে মেরে গুরুতর জখম করে। এসময় সন্ত্রাসীরা সাকের আলম এর পকেটে থাকা নগদ ২হাজার ২শ ২৫ টাকা এবং কোমরে থাকা (পাওনা দারদের দেওয়ার জন্য কিস্তি সমিতি হতে ঋণ নেওয়া) ১০ হাজার টাকা জোর পূর্বক কেড়ে নেয়। পাশাপাশি সাকের আলমের ব্যবহারের একটি স্যামসং মোবাইল ফোনও কেড়ে নেয়। ওই সময় সন্ত্রাসীদের কবল থেকে সাকের আলমকে বাঁচাতে তার স্ত্রী হামিদা খানম এগিয়ে আসলে তাকেও চুলের মুটি ধরে টানা হেছড়া করে শ্লীলতাহানি করে। পাশাপাশি সাকের আলম এর ভাবী তাহেরা বেগম ও আরেফা বেগমকেও টানা হেছড়া করে শ্লীলতাহানি ও কুউদ্দেশ্যে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যেতে চাইলে সাকের আলম ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের শোর চিৎকারে আশে পাশের লোকজন ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে আসলে ওই সন্ত্রাসী আবদু শুক্কুর গং তাদের ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়।

এদিকে গুরুতর আহত সাকের আলমের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জখমী সাকের আলমের শরীরের বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় সদর হাসপাতালের সার্জারী বিভাগে ভর্তি করান। বর্তমানে দিনমজুর সাকের আলম চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে সাকের আলম এর স্ত্রী হামিদা খানম জানান, সন্ত্রাসী আবদু শুক্কুর আবুল হোসেন, ভুট্টো, মনির আহমদ, মিজান সহ অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী আমার বাড়ীতে এসে আমার স্বামী সাকের আলমকে ডেকে ঘর হতে বের করে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে বেদম মারধর করে টাকা ও মোবাইল সেট জোর পূর্বক কেড়ে নেয়। এসময় আমি কোরআন শরীফ পাঠরত ছিলাম। আমি ঘর হতে বের হয়ে দেখতে পাই যে, আমার স্বামীকে সন্ত্রাসী মারতে মারতে মাটিতে লুটাইয়া ফেলে। এতে আমি ও আমার ঝাঁ তাহেরা বেগম ও আরেফা বেগম বাঁধা প্রদান করলে, সন্ত্রাসীরা আমাকে ও আমার ঝাঁ দেরকে চুলের মুটি ধরে টানা হেছড়া করে শ্লীলতাহানী করে কু উদ্দেশ্যে পাহাড়েরর দিকে নিয়ে যেতে চায়। কিন্তু আমাদের শোর চিৎকারের আশে পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এব্যাপারে হামিদা খানম বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগও দায়ের করেছে বলে জানান হামিদা খানম।

খুরুশকুল ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার রিয়াজ উদ্দিন মিনু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সন্ত্রাসী আবদু শুক্কুর, আবুল হোসেন, ভুট্টো, মনির আহমদ, মিজান সহ অজ্ঞাত নামা ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী দিনমজুর সাকের আলম ও তার পরিবারের উপর হামলা করে। বর্তমানে সাকের আলম গুরুতর অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালের সার্জারী বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎস ডা. এ হোসাইন সুমন জানান, জখমী সাকের আলমের শরীরে থেতলানো জখম হওয়ায় তার অবস্থা আশংকা জনক। আমরা তার উন্নত চিকিৎসা প্রদান করছি।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com