Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / ক্রীড়া / গ্রামীণ ফোন ডিসি সাহেবের বলী খেলা দিদারের সাম্রাজ্যে সামশু বলীর বাজিমাত : যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন

গ্রামীণ ফোন ডিসি সাহেবের বলী খেলা দিদারের সাম্রাজ্যে সামশু বলীর বাজিমাত : যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন

Mela - Deshbidesh news 3pic (3)

এম.আর মাহবুব; কক্সভিউ :

ঐ নতুনের কেতন উড়ে কালবৈশাখীর ঝড়, তোরা সব জয় ধ্বনি কর’ সত্যি বৈশাখের রুদ্রতপ্তের শেষ বিকেলে হেভিওয়েট বলী দিদারের উপর আক্রমণের বৈশাখী ঝড় তুলল উখিয়ার সামশু বলী। হাজারো দর্শকের সামশু-সামশু চিৎকারের দিনে হারতে হারতে বেঁচে গেল কক্সবাজারের ইতিহাস জাগানিয়া বলী দিদার। শেষ পর্যন্ত দু’পারের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ উত্তেজনায় ভরপুর দু’সেয়ানের লড়াইটি শেষ হয় যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণার মধ্য দিয়ে।

Mela - Deshbidesh news 3pic (2)প্রথম পারে দিদারের উপর সুস্পষ্ট প্রাধান্য ছিল সামশু বলীর। দ্বিতীয় পারে অবশ্য সামশু বলীর উপর প্রাধান্য বিস্তার করে খেলে সুচতুর দিদার বলী। ফলে দু’হেভিওয়েট বলীর না হারার দিনে গ্রামীণ ফোন ডিসি সাহেবের বলী খেলায় যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সূ-দীর্ঘ এক যুগ্ম ধরে চ্যাম্পিয়ন রামুর দিদার ও বিগত তিনবছর ধরে আলোচনায় আসা উখিয়ার সামশু বলী। ২নং বাউটে সুস্পষ্ট প্রাধান্য বিস্তার করে মহেশখালীর বজল বলীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সুঠাম দেহের অধিকারী চকরিয়ার তারেক বলী। অভিজ্ঞ সাবেক বলীদের মতে ১৮-২০ বছর বয়সী তারেক আগামী দু’এক বছরের মধ্যেই দিদার ও সামশুকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবে।

৩নং বাউটে রামুর নন্দাখালীর ভুলু বলী সাহাব উদ্দিনকে হারিয়ে ৩য় সেরা হয়েছে।

১৬ এপ্রিল কক্সবাজার বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন স্টেডিয়ামে রেকর্ড হাজার বারো দর্শকের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বলী খেলা শেষে এক পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার সদর রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন কক্সবাজারের মানুষের ইতিহাস ঐতিহ্যের সাথে চলে আসা সুদীর্ঘ ৬ দশক ধরে চলে আসা ঐতিহ্যবাহী ডিসি সাহেবের বলী খেলা আমাকের সহজাত সংস্কৃতি ও উৎসবের প্রতীক। সুঠাম দেহের মানুষ তৈরীতে বলী খেলার ঝুড়ি মেলা ভার। একে আমাদের দেশীয় সংস্কৃতির আইডল করতে হবে।

এতে বক্তব্য রাখেন স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ফোনের রিটাল সার্কেল হেড মুক্তাদি উর রহমান, ডিএসএ সাধারণ সম্পাদক অনুপ বড়ুয়া অপু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বলী খেলা ও বৈশাখী মেলা উদযাপন পরিষদের সম্পাদক হেলাল উদ্দিন কবির।

উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবদুস সোবহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আনোয়ারুল নাসের, ডিএসএ সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন, অতি: সাধারণ সম্পাদক আবছার উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক হারুনর রশিদসহ ডিএস কর্মকর্তাগণ।

পরে অতিথিবৃন্দ যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন দিদার ও সামশু বলীর কাছে ২৫ হাজার টাকার প্রাইজ মানির সাথে ট্রফি তুলে দেন। এছাড়া ২নং বাউটের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ বলী ১০ হাজার টাকা ও ৭ হাজার টাকার সাথে ট্রফি লাভ করেন।

তাছাড়া ৩নং বাউটের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ বলী ট্রফির সাথে লাভ করেন নগদ ৭ হাজার টাকা ও ৫ হাজার টাকা।

%d bloggers like this: