রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৩:০৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বিএনপির জন্য অপেক্ষা করবে নির্বাচন কমিশন ঈদগাঁওয়ের সাংবাদিক সাগরের পিতা অসুস্থ : দোয়া কামনা  ঈদগাঁওতে দূর্গোৎসব উপলক্ষে ২৬টি মন্ডপে অনুদান ঈদগাঁও ঐক্য পরিবারের সভায় বিভিন্ন বিষয়ে উঠান বৈঠকের সিদ্ধান্ত ঈদগাঁওতে লোডশেডিংয়ের ত্রাহি অবস্থা তুমব্রু সীমান্তে চোরাই পথে আনা ২৭টি মহিষ জব্দ করেছে বিজিবি লামা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মশালা অনুষ্ঠিত আলীকদম প্রাণীসম্পদ বিভাগের মামলায় ইউনুচ মিয়ার জামিন, ইউএনও ও প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তাকে আদালতে তলব ঈদগাঁওতে বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক র্যালী ও আলোচনা সভা রামু বৌদ্ধ পল্লী ট্র্যাজেডির ১০ বছর আজ   লামায় বাঁশ ব্যবসায়ীকে নৃশংসভাবে খুন : আটক ২

চকরিয়ায় কিশোরকে বলাৎকারে বাঁধা দেয়ায় হামলাকারীদের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ শিক্ষার্থী-জনতার

Mukul - Chakaria - 08.08.15 -03মুকুল কান্তি দাশ, চকরিয়াঃ

কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ছোঁয়ালিয়াপাড়া গ্রামের মোজাফ্ফর আহমদের ছেলে ৫ম শ্রেণির ছাত্র মো: আবু হানিফা (১২)কে বলাৎকারের সময় বাঁধা দেওয়ায় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে কিশোর পরিবারের ৫ সদস্যকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত জসিম উদ্দিন বাবুলসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। ওই সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে ৮আগষ্ট শনিবার বিকাল ৪টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া সদরে দীর্ঘ মানবন্ধন, বিক্ষোভ ও গণস্বাক্ষর অভিযান পরিচালনা করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

পরিবারের সদস্য ও স্থানীয় লোকজন জানায়, গত ২০ জুলাই কৈয়ারবিলের মৃত জহির আহম্মদের পুত্র কথিত ডাক্তার জসিম উদ্দিন বাবুল কিশোর শিক্ষার্থী মো: আবু হানিফা (১২)কে মূখ চেপে ধরে জোর পূর্বক বলাৎকারের চেষ্টা চালায়। এ সময় তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে লম্পট জসিম উদ্দিন বাবুল পালিয়ে যায়। ঘটনার পর লম্পট বাবুল ও তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্য আবু কায়সার, নেজাম উদ্দিন, আলাউদ্দিন, শামসুদ্দিন, নাছির উদ্দিন, রিবান, রিয়াজ, ছোটন, নায়েকসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জন সন্ত্রাসী হানিফার পরিবারের সদস্য ও স্থানীয় লোকজনের উপর পরিকল্পিত হামলা চালায়। হামলায় মৃত হাজি কবিরের পুত্র হাজী মুজিবুল হক (৫৫), তার স্ত্রী জোবাইদা বেগম, ছেলে মো: মারওয়ান, তানভির, আরিফ, জিয়াউর রহমান ও নুরুল মোস্তফা গুরুতর জখম হয়। এ নিয়ে ২২জুলাই মুজিবুল হক বাদী হয়ে ১০জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জনকে আসামী দেখিয়ে চকরিয়া থানায় মামলা (নং৩০/১৫) দায়ের করেন।

এ ঘটনায় মামলা হলেও কেউ গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এতে কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় জনতা শনিবার বিকালে দায়ী ব্যাক্তিদের গ্রেফতারপূর্বক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

মহাসড়কে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চকরিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি শহিদুল ইসলাম শহিদ, চকরিয়া পৌরসভা ৮নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সহসভাপতি জহিরুল আলম সাগর, পৌরসভা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আরিফ মঈনউদ্দিন রাসেল, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অহিদুজ্জামান অহিদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও পৌর যুবলীগ নেতা মাহমুদুল হক চৌধুরী তফসির, চকরিয়া মোহনা শিল্পী গোষ্টীর সভাপতি দিদারুল ইসলাম ইমন, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, কৈয়ারবিলের বাসিন্দা আবুল কালাম, নুরুল আলম, শহিদুল ইসলাম, হামিদুর রহমানসহ বিভিন্ন স্থরের প্রতিনিধি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী।

এদিকে আহত পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে এবং মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দিচ্ছে।

চকরিয়া থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, কিশোর আবু হানিফাকে বলাৎকার চেষ্টা ও হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com