মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

চকরিয়ায় ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ নিহত ৩ : আহত ১৫

চকরিয়ায় লবণবোঝাই ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে অগ্নিদগ্ধ হয়ে শিশুসহ নিহত ৩ : আহত ১৫

চকরিয়ায় লবণবোঝাই ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে অগ্নিদগ্ধ হয়ে শিশুসহ নিহত ৩ : আহত ১৫মুকুল কান্তি দাশ, চকরিয়া:

কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার হারবাং এলাকায় লবণ বোঝাই ট্রাক ও পর্যটকবাহী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে শিশু ও নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। এদের মধ্যে মাইক্রোবাসে অগ্নিকাণ্ডে ৫ জন দগ্ধ হন। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের হারবাংয়ের গোয়ালমারায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ার হারবাং গয়ালমারা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মাইক্রোতে দগ্ধ হয়ে নিহত তিনজনের মধ্যে একজন পুরুষ, একজন মহিলা ও ৮বছর বয়সী শিশূ কন্যা। অগ্নিদগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত কক্সবাজারের কাজলি তালুকদার দাবী করেছেন নিহত পুরুষ তার স্বামী কমল তালুকদার। মারা যাওয়া অপর শিশূসহ মহিলার পরিচয় পাওয়া যায়নি।

অগ্নিদগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হওয়ার পর চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিত্সার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে কাজলি তালুকদার(৪৫), তার মেয়ে শীলা তালুকদার(১২), কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও মাইজ পাড়ার আবদুর রহমানের মেয়ে জন্নাতুল মাওয়া (১৫) ও তার দাদি রাবেয়া বসরী (৬০), চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার ফকির দীপা তালুকদার (২৫)।

চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে জেলার উখিয়া উপজেলার কোটবাজার সোনার পাড়া নুর আহমদের ছেলে মাহমুদুল হক (২৫), চকরিয়ার হারবাংয়ের মিলন ধরের ছেলে অসীম ধর (৪০), ফাঁসিয়াখালীর ছৈয়দ আলমের ছেলে মিজানুর রহমান (১৮), বমুবিলছড়ির আবদুল আলিমের ছেলে সিজার (২০), একই এলাকার আবদুস ছমদের ছেলে করিম (২৭), পার্বত্য জেলা বান্দরবানের লামার হরিণজিরি এলাকার মোঃ কালুর ছেলে নুরুল আলম (৫০), মহেশখালীর হোয়ানক এলাকার মোস্তাক আহমদের ছেলে সুলতান আহমদ (৪০), মাতারবাড়ীর উত্তর রাজঘাট এলাকার মৃত সদর আমিনের ছেলে নুরুল আমিন (৩৪) ও চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার চুনতি এলাকার আবু তাহেরের ছেলে মোহাম্মদ শওকত (৩৫)কে ।

এছাড়া ১০-১১ মাস বয়সি জখমি এক শিশু চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সাধীন থাকলেও তার কোন নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীর উদ্ধৃতি দিয়ে চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কামরুল আজম বলেন, যাত্রীবাহী মাইক্রোবাসটি চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাচ্ছিল। গয়ালমারায় পৌছলে বিপরীতমূখী লবণবোঝাই মিনিট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিষ্ফোরণ ঘটে মাইক্রোতে আগুন ধরে যায়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে নিরাপত্তায় থানা ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পাশাপাশি চকরিয়া পৌরশহর থেকে দমকল বাহিনী গিয়ে মাইক্রোতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

দুর্ঘটনার পর প্রায় ১ ঘন্টা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিলো। পরে স্থানীয় জনতার সহায়তায় পুলিশ গাড়ি দুটি সড়কের পাশে সরিয়ে নিলে ফের যান চলাচল শুরু হয়। পরে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ, চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রভাষ চন্দ্র ধর।

ওসি প্রভাষ ধর বলেন, অজ্ঞাত মরদেহ দুটির পরিচয় উদঘাটনে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও বান্দরবানের বিভিন্ন থানা পুলিশের মাধ্যমে খোঁজ নেয়া হচ্ছে। পরিচয় পাওয়া গেলে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবার সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

https://www.facebook.com/coxview

Design BY Hostitbd.Com