শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

জিয়াউর রহমানের ৮১তম জন্মবার্ষিকী আজ

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮১তম জন্মবার্ষিকী আজ। ১৯৩৬ সালের এই দিনে বগুড়া জেলার গাবতলী উপজেলার বাগমারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার ডাক নাম কমল। প্রতিবছরের মতো এবারও দিবসটি উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে বিএনপি। সকাল ১০টায় শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এছাড়া সারা দেশে বিএনপি নেতাকর্মীরা নানা আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে দিবসটি পালন করবে। মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার, জেড ফোর্সের প্রধান হিসেবে জিয়াউর রহমান এদেশের মানুষের কাছে প্রথম পরিচিত হলেও পরে তিনি বাংলাদেশের একজন বরেণ্য রাষ্ট্রনায়কে পরিণত হন। পররাষ্ট্রনীতিতে ব্যাপক পরিবর্তন এনে জিয়াউর রহমান চীনসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রের সঙ্গে নতুন সম্পর্কের সূচনা করেন। জিয়াউর রহমান প্রতিষ্ঠিত বিএনপি সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। ১৯৮১ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানে প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে মর্মান্তিকভাবে নিহত হন। মুক্তিযুদ্ধে অসীম সাহসী অবদানের জন্য স্বাধীনতার পর তৎকালীন সরকার তাকে বীরউত্তম খেতাবে ভূষিত করে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এক বাণীতে বলেন :  মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, সফল রাষ্ট্রনায়ক জিয়া্উর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব সুরক্ষা; গণতন্ত্র, মানুষের ভোটাধিকার, ন্যায়-বিচার ফিরিয়ে আনা এবং মানুষের হারানো মৌলিক ও মানবাধিকার পুনরুদ্ধার করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাই। তার প্রদর্শিত পথেই আধিপত্যবাদের ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করে জনগণের ঘাড়ে চেপে বসা বর্তমান ফ্যাসিবাদী শক্তিকে পরাভূত করতে হবে। শহীদ জিয়ার বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী দর্শনেই আমাদের জাতিসত্তার সঠিক স্বরূপটি আবিষ্কৃত হয়-যা আমাদের ভৌগোলিক জাতিসত্তার সুনির্দিষ্ট পরিচয় দান করে। বিশ্ব মানচিত্রে আমাদের আত্মপরিচয় উদ্ভাসিত হয়ে উঠে। ‘বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ’ আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব টিকিয়ে রাখারও সাহসী অঙ্গীকার।

কর্মসূচি: শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীর উত্তম-এর ৮১তম জন্মবার্ষিকী নানা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। তার মধ্যে আজ সকাল ১০টায় জিয়াউর রহমানের শেরেবাংলা নগরস্থ মাজারে দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দসহ সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

এছাড়া, কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে দলীয় কার্যালয়গুলোতে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। দেশের সকল জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা ও বিভিন্ন ইউনিটগুলো স্থানীয় সুবিধা অনুযায়ী আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করবে।

সূত্র:globetodaybd.com,ডেস্ক।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com