বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৪৯ অপরাহ্ন

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সভায় ২৭৬ পূজা মন্ডপে উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সভায় ২৭৬ পূজা মন্ডপে উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সভায় ২৭৬ পূজা মন্ডপে উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সভায় ২৭৬ পূজা মন্ডপে উৎসবমুখর পরিবেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত

আসন্ন শারদীয় দুর্গোৎসব কক্সবাজার জেলাব্যাপি উৎসবমুখর পরিবেশে উদ্যাপনের প্রস্তুতির লক্ষ্যে জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের বার্ষিক সাধারণ সভা প্রধান সড়কস্থ জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের কার্যালয় ব্রাহ্মমন্দিরে ২ অক্টোবর সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট রনজিত দাশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বাবুল শর্মার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত সভার শুরুতেই পবিত্র গীতা পাঠ করেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি অধ্যাপক অজিত দাশ।

এরপর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা, সদস্য এবং কর্মকর্তাদের মধ্যে যারা এবং যাদের পিতা-মাতা ইতোমধ্যে পরলোকগমন করেছেন তাদের আত্মার সদগতি কামনা করে শোক প্রস্তাব আনা হয়।

সভায় সূচনা বক্তব্যে সভার সভাপতি অ্যাডভোকেট রনজিত দাশ সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সনাতনী সম্প্রদায়ের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান। পাশাপাশি সনাতনী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব আসন্ন শারদীয় দুর্গোৎসব জেলাব্যাপি উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপনের জন্য জেলার সংসদ সদস্যবৃন্দ, জেলা প্রশাসন, জেলা পরিষদ, জেলা পুলিশ প্রশাসন, পৌর প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও পেশাজীবি সংগঠন, ব্যবসায়ী, উপজেলা পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন, জেলা ও উপজেলার জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, ডিজিএফআই, এনএসআই, আনসার, র‌্যাব, বিজিবিসহ সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

তিনি আরো বলেন, আগামী ১২ অক্টোবর মহালয়ার মাধ্যমে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজার কার্যক্রম শুরু হবে। ১৯ অক্টোবর যষ্ঠীর মাধ্যমে দেবীর আগমন ঘটবে। সভায় পূজাকালীন সময়ে পূজা মন্ডপে রং ছিটানো, আতজবাজি ফুটানো, মদ্যপান সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধকরণের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলকে আহবান জানানো হয়। পাশাপাশি আযান এবং নামাজের সময়সূচি অনুসরণপূর্বক বাদ্যযন্ত্র, মাইক/সাউন্ড সিষ্টেম বাজানো থেকে বিরত থাকা এবং বির্সজনের দিন অর্থাৎ ২৩ অক্টোবর দুপুর ১২.৩০ মিনিট হতে বিকাল ২টা পর্যন্ত প্রতিমা বির্সজনুষ্ঠানে নিয়ে আসার সময় গাড়িতে সকল প্রকার বাদ্যযন্ত্র বাজানো সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রাখার আহবান জানানো হয়।

তাছাড়া শারদীয় দুর্গোৎসবের পূর্বে সকল উপজেলা পূজা কমিটিকে সাংগঠনিক কার্যক্রম হিসেবে কোন ইউনিয়ন কমিটি বা উপজেলা কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন-জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক সোমেশ্বর চক্রবর্তী, উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট পীযুষ কান্তি চৌধুরী, সহ-সভাপতি অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বপন পাল, দীপক শর্মা দিপু, সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপক দাশ, রামু উপজেলার যুগ্ম আহবায়ক তপন মল্লিক, চকরিয়া উপজেলার সদস্য সচিব বাবলা দেবনাথ, কুতুবদিয়া উপজেলার সভাপতি অধ্যাপক সমীর কান্তি দাশ, মহেশখালী উপজেলার সভাপতি মাস্টার ব্রজগোপাল ঘোষ, পেকুয়া উপজেলার সভাপতি সুমন বিশ্বাস, টেকনাফ উপজেলার সভাপতি শিবুপদ ভট্টাচার্য্য, উখিয়া উপজেলার সদস্য সচিব রুপন দেওয়ানজী ও পৌর কমিটির সভাপতি ডাঃ চন্দন কান্তি দাশ।

সভায় উপস্থিত ছিলেন-উপদেষ্টা রাজ বিহারী চৌধুরী, দুলাল কান্তি চক্রবর্তী সুভাষ পাল, চিত্ররঞ্জন দাশ টুন্টু, সুনিল দত্ত, সন্তোষ দাশ, সহ-সভাপতি কাউন্সিলর রাজ বিহারী দাশ, রতন দাশ, অধ্যাপক অজিত দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক স্বরূপম পাল পাঞ্জু, অ্যাডভোকেট প্রতিভা দাশ, অর্থ সম্পাদক স্বপন গুহ (সাধারণ সম্পাদক পৌর কমিটি), জেলা কর্মকর্তা বিপুল সেন, সুভাষ ধর, অলক ভট্টাচার্য্য, বেন্টু দাশ, সুবিমল ভট্টচার্য্য, বিশ্বজিত পাল বিশু, স্বদীপ শর্মা, বিপ্লব মল্লিক, বলরাম দাশ অনুপম, জনি ধর, ডাঃ পরিমল দাশ, খোকন দাশ, মিলন দাশ, চঞ্চল দাশগুপ্ত, শিমুল পাল, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট বাপপী শর্মা, পেকুয়া উপজেলার সাধারণ সম্পাদক অপর্ন দেবনাথ, টেকনাফ উপজেলার সহ-সভাপতি ডাঃ অমর দাশ, রামু উপজেলার যুগ্ম আহবায়ক সুজন শর্মা, অপূর্ব পাল, সদস্য সচিব বাবুল ধর, রুপন মল্লিক, রেখা নন্দী প্রমুখ। সভায় জেলা পূজা কমিটির উপদেষ্টাবৃন্দ, কার্যকরী পরিষদের সদস্যবৃন্দ ও উপজেলা এবং পৌর কমিটির কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

– প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com