http://coxview.com/wp-content/uploads/2022/09/Health-Tonsils-.jpg

টনসিলের ব্যথা দূর করার উপায়

অনলাইন ডেস্ক :
আবহাওয়া বদল হচ্ছে, একটু একটু করে শীত বাড়ছে। শীতের সময় একটি রোগ ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। সেটি হচ্ছে টনসিল। এই ব্যথা অনেক সময়ই যন্ত্রণাদায়ক হয়ে ‍ওঠে।

শীতকাল ছাড়াও আবহাওয়া একটু ঠাণ্ডা থাকলে বর্ষাকালেও টনসিলের সমস্যা দেখা দিতে পারে। টনসিল ব্যথায় আমরা ছুটি ডাক্তারের কাছে। কিন্তু ঘরে বসেই টনসিল ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

জিহ্বার পেছনে ও গলার দুই পাশে গোলাকার পিণ্ডের মতো যা দেখা যায় তা হলো টনসিল। টনসিল দেখতে মাংসপিণ্ডের মতো মনে হলেও এটি মূলত এক ধরনের টিস্যু বা কোষ। ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে টনসিলের ব্যথা হয়ে থাকে। সর্দি-কাশির জন্য দায়ী ভাইরাসগুলোই টনসিলের এ সংক্রামণের জন্য দায়ী। সকালে ঘুম থেকে উঠার পর থেকে গলায় ব্যথা অনুভব করছেন। এই ব্যথা সাধারণত টনসিল ইনফেকশনের কারণে হয়ে থাকে। টনসিলের সমস্যা সাধারণত যে কোনও বয়সেই হয়ে থাকে।

লবণ পানি
গলা ব্যথা শুরু হলে যে কাজটি প্রথমেই করা উচিত, তাহলো কুসুম কুসুম গরম পানিতে লবণ দিয়ে কুলকুচি (গার্গল) করা। এতে টনসিল ব্যথা থেকে তাৎক্ষণিক মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এটি টনিকের মতো কাজ করে। উষ্ণ লবণ পানি দিয়ে গড়গড়া করলে গলায় ব্যাকটেরিয়ার সংক্রামণও দূর হয়ে থাকে।

চা পাতা ও মধু
এককাপ গরম পানিতে আধা চামচ সবুজ চা পাতা আর এক চামচ মধু দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এবার ধীরে ধীরে চুমুক দিয়ে ওই চা পান করুন। সবুজ চায়ে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে, যা সব রকম ক্ষতিকর জীবাণু ধ্বংস করে। দিনে ৩ থেকে ৪ কাপ এই মধু-চা পান করুন, উপকার পাবেন।

হলুদ ও দুধ
ছাগলের দুধ টনসিলের ব্যথা দূর করতে বেশ কার্যকরী। ছাগলের দুধে অ্যান্টিবায়োটিক উপাদান আছে। তবে ছাগলের দুধ না পেলে গরুর দুধে এক চিমটে হলুদ মিশিয়ে সামান্য গরম করে খেলে উপকার পাওয়া যায়। হলুদ অ্যান্টি ইনফ্লামেন্টরী, অ্যান্টিব্যায়টিক এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ একটি উপাদান, যা গলা টনসিলের সংক্রমণ ও ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে।

দারুচিনি, মধু
মধু ও দারুচিনি এক সাথে মিশিয়ে খেলে শরীরের অনেক উপকার হয়। ঠাণ্ডা বা সর্দি বা গলা ব্যথায় আক্রান্ত হলে এক টেবিল চামচ মধু, ১/৪ টেবিল চামচ দারুচিনির গুঁড়োর মধ্যে মেশান। মিশ্রণটি পরপর তিনদিন খান।

আদা কুচি চা
দেড় থেকে দুই কাপ পানিতে এক চামচ আদা কুচি আর চা পাতা দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। দিনে অন্তত ৪ থেকে ৫ বার এভাবে চা খেলে উপকার পাবেন। আদার অ্যান্টি ব্যকটেরিয়াল আর অ্যান্টি ইনফালামেন্টরি উপাদান সংক্রামণ ছড়াতে বাধা দেয়। ফলে গলার ব্যথা কমিয়ে দিতেও এটি অত্যন্ত কার্যকরী।

গরম পানি ও লেবুর রস
এক গ্লাস সামান্য গরম পানিতে ১ চামচ লেবুর রস, ১ চামচ মধু, আধা চামচ লবণ ভালো করে মিশিয়ে নিন। এটি টনসিল ব্যথা দূর করার জন্য অত্যন্ত কার্যকরী উপাদান। যতদিন গলা ব্যথা ভাল না হয়, ততদিন পর্যন্ত এই মিশ্রণটি সেবন করুন। টনসিলের সম্যসা দূর করার জন্য এটি খুবই কার্যকরী।

পুদিনা অথবা তুলসি
তুলসির মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিভাইরাল উপাদান। কয়েকটি তুলসি বা পুদিনার পাতা ফুটিয়ে নিন। এই পানিতে সামান্য লেবুর রস মেশান। স্বাদের জন্য এর মধ্যে সামান্য মধু মেশাতে পারেন। এই পানীয় তিনবেলা পান করুন।

Share

Leave a Reply

http://coxview.com/wp-content/uploads/2022/07/coxview.com-Footar-09-07-2017-JPG.jpg
%d bloggers like this: