Home / প্রচ্ছদ / টেকনাফে মালিক বিহীন মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আনিসুর রহমান

টেকনাফে মালিক বিহীন মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আনিসুর রহমান

Giasuddin Bolo - 26-8-2015 (news & pic) 2গিয়াস উদ্দিন ভুলু, টেকনাফ:

কক্সবাজার জেলার সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে ৪২ ব্যাটলিয়ান সদর দপ্তরে ৫৭ কোটি ৬৯ লাখ টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়েছে। ২৬ আগস্ট বুধবার সকাল ১১ টার দিকে বিজিবি ব্যাটলিয়ান সদর দপ্তরে ১ জানুয়ারী থেকে ২৬ আগস্ট ১৫ইং পর্যন্ত বিজিবি জওয়ানরা সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে মালিক বিহীন উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য রয়েছে। এ সব মাদকদ্রব্যের মধ্যে, ১৮ লাখ ৭১ হাজার ৩৯০ পিচ ইয়াবা, ২৮০ কেজি ৫০ গ্রাম গাঁজা, ২৫ হাজার ৫৫২ বিভিন্ন প্রকারের বিয়ারের ক্যান, ৫ হাজার ৩৪ বোতল বিভিন্ন প্রকারের বিদেশী মদ। এছাড়া ২ হাজার ১৮৯ লিটার বাংলা ও চোলাই মদ রয়েছে।

এসব মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মুল্য ৫৭ কোটি ৬৯ লাখ ৯৪ হাজার ৪৫০ টাকা। এ মালিক বিহীন মাদকগুলো ২৬ আগস্ট বুধবার বিনষ্ট করা হয়েছে। মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে কক্সবাজার সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল এম.এম আনিসুর রহমান পিএসসি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বিজিবি জওয়ানরা রাত-দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে অত্যান্ত আন্তরিকতার সহিত সীমান্তে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। মাদক ব্যবসায়ীরা প্রতিনিয়ত তাদের নিত্যনতুন কৌশল অবলম্বন করে পাচারকাজ চালায়। কিন্তু এসব কৌশল অবলম্বন করে বিজিবি মাদকদ্রব্য উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচেছন। মাদকদ্রব্য দেশ ও জাতির জন্য ভয়াবহ একটি অস্ত্র। আগামীতে দেশ ও জাতির প্রাণশক্তি যুব সমাজকে রক্ষা করতে হলে পরিবার ও সামাজিক পর্যায় থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী সংশ্লিষ্টদের কারো সঙ্গে কোন ধরনের আপোষ করা চলবে না। বিজিবি সবসময় মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা কওে আসছে। এ যুদ্ধ অব্যাহত থাকবে। আমরা মাদককে ঘৃণা করি এবং আজকে মাদক ধ্বংসের মাধ্যমে ঘৃণা করছি। এ যুদ্ধে আমরা সবাই একসাথে কাজ করলে তা নিমূল করা সম্ভব। তাই বিজিবিকে তথ্য দিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংবাদকর্মীদেরকে সহযোগিতা করার আহবান জানিয়েছেন।

Giasuddin Bolo - 26-8-2015 (news & pic) 1এ মাদকদ্রব্য বিনষ্টকরণ অনুষ্ঠানে অন্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ৪২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আবু জার আল জাহিদ, অতিরিক্ত পরিচালক মেজর মোঃ আব্দুল হান্নান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ মোজাহিদ উদ্দিন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের টেকনাফ পরিদর্শক মোহাম্মদ ইব্রাহীম খাঁন, টেকনাফ শুল্ক ষ্টেশনের কর্মকর্তা মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, টেকনাফ পৌরসভার প্যানেল আব্দুল্লাহ মনির, টেকনাফ এনএসআই ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম, টেকনাফ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কিবরিয়া ও এএসআই মোঃ কাইয়ুমসহ স্থানীয় গণ্যমান্য বক্তিবর্গ ও সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: