বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৩৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বিএনপির জন্য অপেক্ষা করবে নির্বাচন কমিশন মহেশখালীর খাইরুল আমিন হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন সাউথ এশিয়ান কারাতে চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতায় লামার মডার্ণ স্কুলের অভাবনীয় অর্জন ভ্রমণে ইনানী সমুদ্রসৈকত চমেকে ঈদগাঁওর সংবাদকর্মী পুত্র জামির সফল অপারেশন সম্পন্ন কক্সবাজারে আইনজীবীদের আদালত বর্জন কর্মসূচী স্থগিত টনসিলের ব্যথা দূর করার উপায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে চট্টগ্রামে যুবলীগের প্রস্তুতি সভা ২৬ শর্তে বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি এডঃ হারুন অর রশিদ’র পিতার মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির শোক প্রকাশ এসএসসিতে ঈদগাঁও উপজেলার ৬টি প্রতিষ্ঠানে ফলাফল : এ+ পেল ৯০ জন

নাইক্ষ্যংছড়িতে এডিপি’র ২৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ চেষ্টার অভিযোগ

ADPইফসান খান ইমন, নাইক্ষ্যংছড়ি : পার্বত্য জেলা বান্দবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় চলতি অর্থ বছরের বিশেষ বরাদ্দের ২৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ প্রচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বার্র্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় বরাদ্দ হওয়া এ টাকার ভাগ-ভাটোয়ারা নিয়ে উপজেলা সদরে চলছে নানা গুঞ্জন। বিশেষ করে ৩০ জুন এ টাকা খরচের সময়সীমা শেষ হলেও এ উপজেলায় কোন কাজই না করে সব টাকাই ব্যাংক থেকে উঠিয়ে নিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। এদিকে উপজেলা প্রকৌশলী এ টাকা কাজ না করে ব্যাংক থেকে উঠানোর কথা স্বীকার করলেও ভাগ-ভাটোয়ারা কথা অস্বীকার করেন।

বিশ্বস্ত একাধিক সূত্র জানায়, এডিপি’র এ ২৪ লাখ টাকা দেশের সব উপজেলার মতো নাইক্ষ্যংছড়িতেও পৌঁছে ১২ জুন। অন্যান্য উপজেলায় সরকারী বিধি মোতাবেক টেন্ডার আহবান করা হলেও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় তা করা হয়নি রহস্যজনক কারণে। বরং উপজেলা প্রকৌশলীসহ এর সাথে জড়িত অন্যান্যরা দীর্ঘ সূত্রিতা করে সরকারী বিধির টেন্ডারের বদৌলতে ১৮ জুন আড়াইটায় একটি গোপন মিটিং দেখিয়ে এ টাকার ব্যাংক থেকে উত্তোলনের রেজুলেশন করে। আর সে আয়োজনে শরীক করা হয় ৫ ইউনিয়নের মেম্বার-চেয়ারম্যানদেরও। এসব নেতাদের সাথে কিছু প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা এবং উপজেলা পরিষদের একাধিক প্রভাবশালী সদস্য মনগড়া কিছু প্রকল্প দেখিয়ে এ টাকা জায়েজের সিদ্ধান্ত নেন বেআইনীভাবে। আর এ নিয়ে সর্বশেষ ৩০ জুন উপজেলার সমন্বয় কমিটিতে সাফাই বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামির হোসেন সহ কয়েকজন। অথচ টাকাগুলো তারা ব্যাংক থেকে উত্তোলনই করে ফেলেছেন এর আগে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ শাহ আলম আক্ষেপ করে জানান, আওয়ামীলীগ সরকার সারাদেশে উন্নয়নের জন্যে কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছে। আর কিছু দুর্নীতিবাজ চক্র এসব টাকা লুটপাট করে যাচ্ছে। নাইক্ষ্যংছড়িতে এডিবি’র ২৪ লাখ টাকা ভাগ-ভাটোয়ারার আয়োজন তারই দৃষ্টান্ত। প্রকাশ্যে টেন্ডার না দিয়ে এ টাকা ৩০ জুনের মধ্যে কাজ সম্পন্নের সরকারী আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে গোপনে টাকা ব্যাংক থেকে তুলে নেয়ার ঘটনা মেনে নেয়া যায় না। এ সব প্রকাশ্য অনিয়মের বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনসহ সকলের হস্তক্ষেপও চান তিনি। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু শাফায়াত মোঃ শাহেদুল ইসলাম জানান, প্রকাশ্য টেন্ডারের বিষয়, ৩০ জুনের মধ্যে কাজ শেষ করে টাকা ব্যাংক থেকে উত্তোলন সবই সরকারী বিধান। ফেরৎ যাওয়ার ভয়ে কাজ না করে হলেও ৩০ জুনের আগেই টাকা গুলোব্যাংক থেকে তোলা হয়েছে বলে তিনি জানেন। আর নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামির হোসেন জানান, তিন কারণে তিনি এবং সংশ্লিষ্টরা এ টাকা তুলে নিয়েছেন। (১) জনগণের উপকারের জন্যে ডিউ টাইমে ব্যাংক থেকে এ টাকা উত্তোলন করা হয়। (২) সরকারী সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের কারনে (৩) ৩০ জুনের মধ্যে।

এ ২৪ লাখ টাকা যথাযথভাবে ব্যয়ের বিধি বিধান মানা সম্ভব না হওয়ায় এ টাকা তোলা হয়েছে কাজ না করেই। আর উপজেলা পরিষদ চুক্তিনামা ও পাবলিক প্রকিউরমেন্ট অনুসারে সরকারের যে কোন কাজ ২ লাখ টাকার উর্দ্ধে হলে ২ টি জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশ্যে বিজ্ঞাপন দেয়ার বিধানের বিষয়ে তিনি বলেন, দেশের অন্যান্য উপজেলায় যারা পত্রিকায় দরপত্র আহবান করেছেন তারা গোজামিল করে এ সব করেছে।

মূলতঃ তারা আইন না মেনেই সবকিছু করে যাচ্ছে এ বিষয়ে। এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা ডাঃ ইসমাঈল হেসেন জানান, ২৪ লাখ টাকার ঘাপলার কথা শুনে তিনি গত বুধবার বিকেলে উপজেলা প্রকৌশলী’র সাথে কথা বলতে যান। এ পর্যায়ে তিনি।

৩০ হাজার মানুষের ব্যবহার হওয়া বিছামারা ব্রীজ ও মেরাচং পাড়া ব্রীজ দু’টির সামান্য সংস্কার করার প্রস্তাব দিলে এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এ খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামীলীগ পরিবারে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক তসলিম ইকবাল চৌধুরী জানান, ২৪ লাখ সরকারের টাকা ভাগ-ভাটোয়ারার খবর শুনে অবাক হয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ উন্নয়ন প্রকল্প আর মন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি’র ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রদেয় বিভিন্ন সংস্থার অনুদান তছরুপ করা মানে এর অবমাননা করা। তিনি অতিসত্তর এ দুর্নীতিবাজ প্রকৌশলী জামির হোসেনের শাস্তি দাবীও করেন। বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য মাষ্টার ক্যাওচিং চাক বলেন,এতো টাকা আত্মসাৎ মেনে নেয় যায় না। বেআইনী কাজ করা এ সরকার মোটেও পছন্দ করে না।এদিকে একাধিক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা, ২৪ লাখ টাকার লুটপাটের খবর প্রকাশের পর ভ‚য়া ঠিকাদাররা তাদের পে অর্ডারগুলো উপজেলা প্রকেীশলীকে ফেরত দিয়ে আসে। এবং সব টাকা মেরে খাওয়ার বিষয়টি প্রকাশের পর ভাগ নেয়া নেতারাও প্রকৌশলীর পাশ থেকে সরে যান। এখন বড়ই অসহায় হয়ে পড়েন তিনি। তবে উপজেলা প্রকেীশলী মোঃ জামির হোসেনকে জানতে মুঠোফোনে বারবার চেষ্টা করেও তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। তবে উপজেলা আওয়ামী সভাপতি আবু তাহের মন্ত্রী’র প্রতিনিধি খাইরুল বশর সহ ছাত্রলীগ ও অংগ সংগঠনের সকলস্তরের নেতা কর্মীরা এ ধরনের ঘটনাকে সরকারের ভাবমুর্তি নষ্ট হবে মন্তব্য করেন।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com