Home / প্রচ্ছদ / পরকিয়ার বলি নাকি পরিকল্পিত হত্যা : কুতুবদিয়ায় স্বামী খুন! স্ত্রী আটক

পরকিয়ার বলি নাকি পরিকল্পিত হত্যা : কুতুবদিয়ায় স্বামী খুন! স্ত্রী আটক

Khon - Rasel - 19-12-2015  (news & 1pic) f1এম রাসেল খাঁন জয়;কুতুবদিয়া :

শনিবার দিবাগত রাতে স্বামীকে খুন করার অভিযোগে সন্দেহজনক ভাবে স্ত্রীকে আটক করে কুতুবদিয়া থানা পুলিশ। শনিবার সকালে নিহত মোহাম্মদ বাবুল (৪০) এর লাশ হাত, পা, মুখ বাধাঁ অবস্থায় কৈয়ারবিল ইউনিয়নের বিন্দা পাড়া এলাকার কালর্ভাট থেকে কুতুবদিয়া থানা পুলিশ উদ্ধার করেছে।

সূত্রে জানা যায়, বড়ঘোপ ইউনিয়নের মাতবর পাড়া এলাকার মৃত নুর আহম্মদের পুত্র মোহাম্মদ বাবুল (৪০) প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর গত ৪ মাস আগে উত্তর ধূরুং ইউনিয়নের চুল্লার পাড়া এলাকার ছৈয়দ আহম্মদের কন্যা (স্বামী পরিত্যাক্তা) রেখা আকতার (২৫) এর সাথে সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। ৪ মাস যেতে না যেতে স্ত্রী রেখা পরকিয়া প্রেমে আসক্ত হয় বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে নিহত বাবুলের ভাই জানায়, রেখার সাথে দেখা করতে প্রায় সময় অপরিচিত লোকজন তাদের বাসায় আসতো। রেখার স্বামী রেখাকে অপরিচিত লোকজনের সাথে মেলামেশা করতে নিষেধ করলে, রেখা স্বামীর কথা অমান্য করে বলতো এরা আমার আত্মীয়। আমার বাসায় আসবে। কাউকে বললে তোমাকে কেটে পেলবো বলে হুমকি দেয়।

এ ঘটনা নিহত বাবুল আমাদের জানালে আমরা বিশ্বাস করিনি। গত শুক্রবার সকালে নিহত বাবুল জমজম হাসপাতালে চিকিৎসা করতে যায়। তার স্ত্রী রেখা আকতার ফোন করে বাবুলের অবস্থান জেনে জমজম হাসপাতালে যায়। হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা সেরে রাত ৮টার সময় মগনামা ঘাট হয়ে কুতুবদিয়া দরবার ঘাট দিয়ে বাড়ি উদ্দেশ্য চলে আসে। লেমশীখালী ইউনিয়নে অনেক ক্ষণ অপেক্ষা করে রাত সাড়ে ১১টার সময় চৌমুহনী এলাকা থেকে রিক্সা যোগে বাড়ি যাওয়ার জন্য গাড়ি ভাড়া করে। যাওয়ার পথে কোন এক সময় এ হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলেছে বলে সচেতন মহল মনে করছে।

এ ব্যাপারে নিহত বাবুলের স্ত্রী রেখা আকতার জানায়, তারা স্বামী-স্ত্রী রিক্সাযোগে বাড়ি যাওয়ার সময় একদল সন্ত্রাসী তাদের গাড়ি গতিরোধ করে তাদের গাড়ি থেকে নামিয়ে তার স্বামীকে মুখ বেঁধে অন্যত্রে নিয়ে যায় এবং তাকে পাশের একটি জায়গায় নিয়ে গণধর্ষণ করেন। তবে তাদের বহনকারী রিক্সা চালক জানালো ভিন্ন কথা। এ ব্যাপারে রিক্সা চালক মোঃ করিমের পুত্র মোঃ আলতাজ জানায়, গত রাত সাড়ে ১১টার সময় লেমশীখালী ইউনিয়নের চৌমুহনী বাজার থেকে উত্তর ধূরুং ইউনিয়নের চুল্লার পাড়া এলাকায় যাওয়ার জন্য রিক্সা ভাড়া করেন তাকে। দরবার রাস্তার মাথায় মেইন রোড়ে পৌছঁলে উত্তর দিকে যাওয়ার সময় তার স্ত্রী রেখা দক্ষিণ দিকে চালাতে বলেন। গাড়ি চালিয়ে বিন্দা পাড়া সেন্টারের পাশে এলে গাড়ি থামাতে বলে। গাড়ি থেকে নেমে খালার বাড়ি থেকে ১০ মিনিট পর আসার কথা বলে তাদের শিশু সন্তান ও তাদের কাপড়ের থলে রিক্সা চালকে দিয়ে চলে যায়। ১০ মিনিটের কথা বলে যখন ২ঘন্টা পরও না আসাতে পাশের দোকানদারের কথামত শিশুটিকে নিয়ে বাড়িতে চলে যায় রিক্সা চালক। সকালে পুলিশ স্থানীয় লোকজনের খবর পেয়ে বিন্দা পাড়া এলাকার কালভার্ট থেকে নিহত বাবুলের (হাত, পা বাঁধা অবস্থায়) লাশ উদ্ধার করেন। পরে সকালে লেমশীখালী ইউনিয়নের জৈনক এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে বাবুলের স্ত্রী রেখাকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আটক করেন।

এ ব্যাপারে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) অং সা থোয়াই জানায়, নিহত বাবুলের লাশের সুরত হাল রির্পোট তৈরী পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে এবং মামলার রজু হওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

এদিকে এলাকার সচেতন মহল মনে করছেন ময়না তদন্তের পরে খুনের আসল রহস্য জানা যাবে।

%d bloggers like this: