Home / প্রচ্ছদ / পিএমখালীতে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে ব্যাপক অনিয়ম : মেম্বার পুত্র শ্রমিক নিজের জমির ধান কাটতে ব্যবহার

পিএমখালীতে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে ব্যাপক অনিয়ম : মেম্বার পুত্র শ্রমিক নিজের জমির ধান কাটতে ব্যবহার

Dhanএম.বেদারুল আলম; কক্সভিউ :

কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালীতে হতদরিদ্রদের কর্মসৃজন কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কয়েকটি ওয়ার্ডে মেম্বাররা নিজের ২ পুত্রকে শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অপর একটি ওয়ার্ডে কর্মসৃজন প্রকল্পের নিয়োজিত শ্রমিক নিয়ে নিজের বাড়ির ধান কাটতে ব্যবহার করছে। সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ২৬ ডিসেম্বর পিএমখালীর কয়েকটি ওয়ার্ডের কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনে অনিয়মের সত্যতা পেয়েছেন। তবে কয়েকটি ওয়ার্ডের কাজে তিনি সন্তোষ ও প্রকাশ করেছেন।

জানা যায়, সদরের গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন পিএমখালীতে (৪০ দিনের) হতদরিদ্রদের নিয়ে অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। পিএমখালীতে কাজ করছে ২২৭ জন শ্রমিক। এদের মধ্যে মোস্তাক আহমদ মেম্বারের সভাপতিত্বে ৫৯ জন, সংরক্ষিত শাহেনা বেগমের সভাপতিত্বে ৪২ জন, মোহামদুল হকের সভাপতিত্বে ৭৩ জন, শওকত আলমের নেতৃত্বে ২৪ জন, তাজউদ্দিন সিকদারের সভাপতিত্বে ২১ জন। এদের মধ্যে ছখোলা এলাকার শাহেনা বেগমের ৪২ জন শ্রমিকের মধ্যে উক্ত এলাকার ১নং ওয়ার্ডের সোলতান আহমদের এবং ২নং ওয়ার্ডের রমজান আলীর এলাকা মিলে ৩ জন মেম্বার ৪২ জন শ্রমিক বরাদ্দ পেলেও মাঠে কাজ করছে মাত্র ২০ জন শ্রমিক। ৪২ জন শ্রমিকের তালিকায় সোলতান মেম্বারের ২ পুত্রের নাম রয়েছে। মেম্বার পুত্ররা কক্সবাজার সরকারি কলেজের ছাত্র হলেও তাদের শ্রমিক হিসাবে নাম দিয়ে শ্রমিকদের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। ৪২ জন শ্রমিক থাকলেও প্রকল্পে মাত্র ২০ জন শ্রমিক কাজ করছে বাকি ২২ জন শ্রমিকের টাকা ৩ জন মেম্বার মিলে ভাগাভাগির মাধ্যমে আত্মসাতের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।

এ ব্যাপারে ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার সোলতান আহমেদ জানান আমার ওয়ার্ডে কাজ ভালো হচ্ছে। আমার ছেলেকে শ্রমিক নিয়োগ দিইনি তবে কাজ দ্রুত শেষ হওয়ার জন্য তাদেরকে সহযোগিতা করতে বলেছি। তিনি কাজ পরিদর্শনের জন্য আমন্ত্রণ জানান সাংবাদিকদের।

অপরদিকে কয়েকটি ওয়ার্ডে মেম্বাররা শ্রমিকদের নিজেদের জমিতে কাজ করার জন্য এমনকি ধান কাটার কাজে ব্যবহার করার অভিযোগ ও পাওয়া গেছে।

৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোহাম্মদুল হকের কাজ পরিদর্শনে গত ২৬ ডিসেম্বর সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বাকি বিল্লাহ প্রকল্প স্থলে সরেজমিনে পরিদর্শনে গেলে ৪ জন অনুপস্থিত পান। উক্ত ৪ জন শ্রমিক মেম্বারের বাড়িতে ধান কাটতে গেছে ও অভিযোগ রয়েছে।

কাজের অনিয়ম বিষয়ে সদর পিআইও মোঃ বাকি বিল্লাহ জানান, কর্মসৃজন প্রকল্পে অনিয়ম পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং যারা অনিয়ম করেছে তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

%d bloggers like this: