শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৪:১৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বিএনপির জন্য অপেক্ষা করবে নির্বাচন কমিশন লামায় গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে ধূম্রজাল লামায় বিদ্যুৎ যাচ্ছে অটোরিকশা-টমটমের পেটে লামায় ৬৯ লিটার চোলাই মদসহ ব্যবসায়ী আটক ১ ঈদগড়ের চালক শহিদুল হত্যাকান্ডে আটক আসামীদের জামিন না মঞ্জুর এবং পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন অসহায় পিতা শুভ জন্মাষ্টমী আজ সারা দেশে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে রামুতে আ’লীগের সমাবেশ অনুষ্ঠিত দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে ঈদগাঁওতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ কক্সবাজার সৈকতে নিখোঁজ পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার  বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা ভাঁজযোগ্য ফোন দেখাল শাওমি ঘোষণার আগেই বাড়লো চিনির দাম

পেকুয়ায় সাবমেরিনের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির মালিকদের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক

dc-mukul-03-11-16-news-3pic-1

মুকুল কান্তি দাশ; চকরিয়া :

কক্সবাজারের উপকূলীয় উপজেলা পেকুয়ায় বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর সাবমেরিন কেবল স্থাপনের লক্ষ্যে অধিগ্রহণ করা ৪৬৬ একর জমির মধ্যে ব্যক্তি মালিকানাধীন ৩৩১ একর জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণ বাবদ সরকারের পক্ষ থেকে  চেক বিতরণ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল প্রথম ধাপে ১০২ জন জমির মালিকের হাতে ৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক মো.আলী হোসেন।

এসময় তিনি বলেছেন, কক্সবাজারের মধ্যে উপকূলীয় উপজেলা পেকুয়া হবে উন্নয়নের নগরী। উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রকল্পের কাছ দ্রæতই শুরু হবে এই উপজেলায়। কক্সবাজার জেলাকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে এই উপজেলায় সাবমেরিন কেবল স্থাপন করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মগনামা ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে আয়োজিত চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

জানা গেছে, বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর জন্য সাবমেরিন স্থাপন করতে ২০১৩ সালে ৪৬৬ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। এ জমির মধ্যে ৩৩১ একর ব্যক্তি মালিকানাধীন ও ১৩৫একর খাস জমি রয়েছে। ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি অধিগ্রহণের বিপরীতে সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ বাবদ জমির মালিকদের একর প্রতি ১৮ লাখ ২২ হাজার ৫’শ টাকা করে মোট ৬০ কোটি ৩২ লাখ ৪৭ হাজার ৫’শ টাকা প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সে লক্ষ্যে বাস্তবায়ন করতে বৃহস্পতিবার প্রথম ধাপে ১০২ জন জমির মালিককে ৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক। এভাবে কয়েক ধাপে জমির ক্ষতিপূরণের নির্ধারিত টাকা প্রদান করা হবে বলে জেলা প্রশাসক অফিস সূত্র জানায়।

এদিকে, ক্ষতিপূরণ প্রদান শুরুর আগেই অধিগ্রহণ করা জমি লাগিয়ত দিয়ে লবণ চাষিদের কাছ থেকে প্রায় ৩০ কোটি টাকা নিয়েছে জমির মালিকরা। একসাথে ক্ষতিপূরণের টাকা না পাওয়ায় মালিকদের কাছ থেকে চাষিরা লাগিয়তের টাকাও কিস্তিতে ফেরত পাবে। কিন্তু ৩ নভেম্বর জমির মালিকরা আংশিক টাকা পেলেও চাষিরা কোন টাকা না পাওয়ায় ওই টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে ৩শতাধিক কৃষক পরিবারে।

মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ ওয়াসিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ নৌবাহিনী কর্মকর্তা ক্যাপ্টেন জসিম, সিনিয়র কর্মকর্তা মনির ও ফারুক, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জাফর আলম, পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু, পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুর রশিদ খাঁন, পেকুয়া জঙ্গি ও সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এস এম গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন রাজাখালী ইউপির চেয়ারম্যান ছৈয়দ নূর, উজানটিয়া ইউপির চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

https://www.facebook.com/coxview

Design BY Hostitbd.Com