Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / বিজ্ঞান, তথ্য ও প্রযুক্তি / ফেসবুক বন্ধুত্ব বনাম বাস্তব বন্ধুত্ব

ফেসবুক বন্ধুত্ব বনাম বাস্তব বন্ধুত্ব

facebook

আধুনিক শহুরে জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। ফেসবুক ছাড়া যেন আমাদের চলেই না। তেমনি চলে না ফেসবুকের বন্ধু ছাড়াও। ফেসবুকে থাকে হরেক রকমের বন্ধু। কেউ কেউ হয়তো আমাদের বাস্তব জীবনে পরিচিত। আবার কেউ কেউ হয়তো আমাদের একেবারেই অপরিচিত। যাদের সাথে আমাদের পরিচয় কেবল ফেসবুকের মাধ্যমেই।

ফেসবুকের বন্ধুরা অবশ্যই ভালো বন্ধু হতে পারে। কিন্তু গোল বাঁধে তখন, যখন আমরা তাদের আমাদের বাস্তব জীবনের বন্ধুদের উপর স্থান দিয়ে দেই এই অচেনা বন্ধুদের। ভার্চুয়াল জগতের মানুষকে বেশি বিশ্বাস করতে শুরু করি আমাদের দশক পুরনো বন্ধু থেকেও।

এই বেহিসাবী বন্ধুত্ব ও বিশ্বাস থেকে অনেক ধরণের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। যেমন অনলাইন সম্পর্কের জের ধরে অর্থনৈতিক ও প্রেমের ক্ষেত্রে প্রতারণার শিকার হওয়া তো নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা। এছাড়া হয়তো দেখা যায় যে, ব্যক্তি অপরিচিত ফেসবুক বন্ধুর সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা চ্যাটিং করছে, এর ফলে বিরূপ প্রভাব পড়ছে তার বাস্তব জীবনের সম্পর্কগুলোতে। পরিবারের সঙ্গে তার সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে, বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি হচ্ছে। আর একটা কথা কিন্তু অস্বীকার করা যাবে না যে, বিপদে-আপদে ভার্চুয়াল বন্ধু-বান্ধবদের চেয়ে বাস্তবের বন্ধুরাই বেশি সাহায্য করে। তাই ভার্চুয়াল বন্ধুদের কারণে বাস্তবের বন্ধুদের সাথে দূরুত্ব সৃষ্টি করা কোনো কাজের কথা নয়।

বলছি না যে, সকল ভার্চুয়াল বন্ধুই খারাপ। অনেক বন্ধু সত্যিকার অর্থেই বন্ধু হতে পারে। এমনকি ফেসবুকে প্রেম করে বিয়ে করার ঘটনাও আজকাল হরহামেশা ঘটছে। ফেসবুক বন্ধুরা বিপদের সময় রক্তদানের মতো বড় সাহায্যও করছেন। কিন্তু তারপরও একটা নির্দিষ্ট পর্যায় পর্যন্ত ফেসবুক বন্ধুদের সঙ্গে সীমানা বজায় রেখে চলা জরুরী। না হলে নিরাপত্তার সংকটে পড়ার সম্ভাবনা থাকে। আর সবচেয়ে বেশি জরুরী ফেসবুক বন্ধুদের কারণে নিজের বাস্তব জীবনের বন্ধুদের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ না করা। কারণ, বাস্তব বন্ধুদের সঙ্গে সম্পর্কের মাত্রা, ভালোবাসার মাত্রা সবসময়ই ভিন্ন। এ ভালোবাসার প্রকাশ ঘটে চায়ের আড্ডায়, দুঃখের সময় কাঁধে হাত রাখায় কিংবা আনন্দের ঘটনায় হাত হাত মেলানোর মধ্য দিয়ে। যা ফেসবুক বন্ধুত্বের বেলায় বেশিরভাগ সময়ই আশা করা যায় না।

সূত্র:protikhon.com

%d bloggers like this: