Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / বিনোদন ও সাংস্কৃতিক / বৈশাখি উত্সবে ঢাকায় আসছেন দীপান্বিতা আচার্য

বৈশাখি উত্সবে ঢাকায় আসছেন দীপান্বিতা আচার্য

Dipanita - 1

কাল চৈত্র সংক্রান্তি, তারপর রাত পোহালেই নতুন বছর! পুরনো দিনের জরা-খরা ঘুচিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত বাংলার মানুষ। আনন্দ উত্সবে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে চলছে মহাযজ্ঞ। আর এই মহাযজ্ঞে শরিক হতে বাংলাদেশে আসছেন। প্রখ্যাত লোকশিল্পী দীপান্বিতা আচার্য। ১৩ এপ্রিল রাতের ফ্লাইটে তিনি ঢাকায় এসে পৌঁছানোর কথা রয়েছে তার।

পৈতৃক ভিটা বাংলাদেশের চট্টগ্রামে। সেই সুবাদে বাংলাদেশের প্রতি তার টান অফুরান। তার গানের ধরন, তার জীবন দর্শন লক্ষ্য করলেই সেটা বোঝা যায়। কথায় কথায় যিনি লালন, হাসন রাজা আর শাহ আব্দুল করিমের কথা বলেন। তাদের নিয়ে কাজও করেছেন বিস্তর, এখনও করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের লোক গানকে ভারতসহ অন্যান্য দেশেও তিনি অসাধারণ ব্যঞ্জনায় পরিবেশন করে যাচ্ছেন একজন অকৃত্রিম বাংলাভাষার শিল্পী হিসেবে।

‘নাগরিক বাউল’ হয়েও বাংলা লোকগানের প্রতি তার যে অকৃত্রিম মমত্ববোধ তা দেখার মত। রাজস্থান ও কলকাতায় জনপ্রিয় এই শিল্পী এবার মা, মাটি আর বাংলার মানুষের সঙ্গে বৈশাখি উত্সবে অংশ নিতে ঢাকায় আসছেন। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে ১৩ এপ্রিল রাতের ফ্লাইটে ঢাকায় আসবেন তিনি। বাংলাদেশে বৈশাখ উদযাপন করে আবার ১৬ তারিখে কলকাতায় ফিরে যাবেন।

বাংলাদেশে আগমন সম্পর্কে দীপান্বিতা জানালেন, এতোবার বাংলাদেশে বৈশাখ উদযাপনের কথা শুনেছি আর এবারই বৈশাখের প্রথম দিনেই বেড়াতে আসছি। এটা আমার জন্য খুবই আনন্দের। ঢাকায় বৈশাখ উত্সব শেষে পরদিন বরিশাল যাওয়ারও কথা রয়েছে তার।

Dipanita - 2

প্রসঙ্গত, বাংলা লোক গানের জন্য এই মুহূর্তে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ মিলিয়ে যে ক’জন গুণী শিল্পী আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম দীপান্বিতা আচার্য। বাংলার অকৃত্রিম সুরে বুঁদ হয়ে থাকা পারিবারিক আবহে বেড়ে উঠেন তিনি। ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতসহ অন্যান্য জেনরের উপর জ্ঞান অর্জন করলেও বাংলার লোকগানের প্রতি অপার মুগ্ধতায় তিনি ‘লোক গান’কেই গাওয়ার জন্য বেছে নেন। রাজস্থানি, আসাম, বিহু এবং কামরুপিসহ অসংখ্য ধারার গান গেয়ে তিনি পরিচিতি অর্জন করেছেন। তার গাওয়া বাংলা লোকগানের মধ্যে পাল তুলে দে, বিনোদিনী, কুঞ্জ সাজাও, পিরিতি বানাইলারে সহ অসংখ্য গান ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

সূত্র:বাংলামেইল২৪ডটকম,ডেস্ক।

%d bloggers like this: