Home / প্রচ্ছদ / মহাসড়কে চলছে নীরব চাঁদাবাজি

মহাসড়কে চলছে নীরব চাঁদাবাজি

Ripon 9-8-2015রাশেদ রিপন

নিয়মের বাইরে গিয়ে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। শহরের উপজেলা বাজার সংলগ্ন মহাসড়কে দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে বিভিন্ন গাড়ি থেকে নিয়ম বহিভর্‚তভাবে টোল আদায় করা হচ্ছে। টোল আদায়ের ক্ষেত্রে লীজের শর্ত অনুসারে নির্দিষ্ট পয়েন্টে টোল আদায়ের কথা উল্লেখ থাকলেও বর্তমানে তা মানা হচ্ছে না। নির্দিষ্ট সীমারেখার বাইরে গিয়ে অর্থাৎ মহাসড়কে টোল আদায় করাকে তাই চাঁদাবাজি বলে উল্লেখ করেছেন স্থানীয় জনসাধারণ ও গাড়ির মালিকেরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শহরের বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে একটু দক্ষিণে উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন বাজারের সামনে প্রকাশ্যে টোল আদায় করা হচ্ছে। ট্রাক, মিনি ট্রাক, পিক আপ, জীপ, ম্যাজিক, নোহা, হাইয়েছ, মাইক্রোসহ বিভিন্ন গাড়ি থেকে ২০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। নির্দিষ্ট সীমারেখার বাইরে মহাসড়কে এভাবে প্রকাশ্যে অবৈধভাবে টোল আদায়কারীদের বিরুদ্ধে এর আগেও বহুবার মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। পৌর কর্তৃপক্ষ এরূপ অন্যায় বন্ধে নির্দেশনা ও বিধিনিষেধ দিলেও প্রকৃতপক্ষে তা মানা হচ্ছে না।

Ripon 9-8-2015 (1)টোল আদায় এর দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিরা হলেন নুর মুহাম্মদ, নারায়ন এবং সাইফুল। এদের ভাষ্যমতে, পৌরসভার কাউন্সিলর লালু ভাইয়ের তত্ত¡াবধানে আমরা এসব টোল আদায় করছি। এর একটি নির্দিষ্ট টাকা সরাসরি পৌরসভায় পৌছিয়ে দেয়া হয় এবং অপর একটি অংশ লীজকারী লালু ভাইয়ের কাছে যায়। তবে এটি আমাদের টোল আদায়ের স্থান না হলেও এটি প্রবেশমুখ হওয়াতে আমরা মাঝে মাঝে এখান থেকে টোল আদায় করে থাকি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওমর সিদ্দিক লালু জানান, আমি এই সমস্ত কোন লীজের সাথে জড়িত না। তবে আমার এলাকা বলে তাদের কোন সমস্যা হলে তারা আমার নাম ব্যবহার করে থাকে। তাছাড়া মেয়র নিজেও আমাকে এসব সমস্যা দেখে রাখতে বলেছেন।Ripon 9-8-2015 (3)

পৌরসভার মেয়র সরওয়ার কামাল জানান, মহাসড়কে টোল আদায় অন্যায়। টোল আদায়ের জন্য স্থর ভেদে আলাদা লীজ দেয়া হয়েছে। এসব লীজের টোল আদায়ের জন্য নির্দিষ্ট স্থান নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। কেউ যদি নির্ধারিত স্থানের বাইরে গিয়ে টোল আদায় করে তবে তা অন্যায় এবং পৌর কর্তৃপক্ষ এসব লীজকারীর অন্যায় বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

মহাসড়কে টোল আদায় যাকে চাঁদাবাজির সামিল বলে মনে করছেন সকলে। এসব অন্যায় বন্ধে বিভিন্ন সময়ে আইনগত ব্যবস্থা নিয়েও এই সমস্যার সুরাহা হয়নি। তাই অচিরেই যাতে যথাযথ আইনী ব্যবস্থার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করা হোক এমনটাই প্রত্যাশা জনসাধারণের।

Leave a Reply

%d bloggers like this: