Home / প্রচ্ছদ / লামায় বিদ্যুতের লাইন সম্প্রাসারণের নামে রাস্তার পাশের গাছ উজাড়

লামায় বিদ্যুতের লাইন সম্প্রাসারণের নামে রাস্তার পাশের গাছ উজাড়

Treeমোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম; লামা :

বান্দরবানের লামা-আলীকদম উপজেলায় ৩৩হাজার বিদ্যুতের লাইন সম্প্রাসারণের নামে রাস্তার পাশে সড়ক সজ্জিতকরণ ও ভাঙ্গন রোধে লাগানো সরকারী কোটি টাকার গাছ কেটে উজাড় করছে সওজ এর কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহায়তায় একটি সিন্ডিকেট। যেখানে গাছের ডাল-পালা কেটেই বিদ্যুত্ লাইন টানা যায় সেখানে মুনাফা লোভে হাজার হাজার গাছ গোড়াই কাটা হচ্ছে। অপরদিকে এই গাছ সিন্ডিকেটের হাত ধরে চলে যাচ্ছে ব্রিকফিল্ড এর লাকড়ি হিসেবে ও করাতকলে।

লামা-আলীকদম সড়কের পাশে বসবাসকারী হরিণঝিরির এলাকার মোঃ শাহজাহান, মোঃ রফিক, ছাগল খাইয়া বাজারের জহিরুল ইসলাম, লাইনঝিরি এলাকার শাহাব উদ্দিন, মোঃ রাসেল সহ অনেকে জানায়, বিদ্যুতের লাইন সম্প্রারনের নামে অযাচিত ভাবে গাছ গুলো কাটা হচ্ছে। যেখানে শুধু গাছের ডাল-পালা কাটলে হয় সেখানে কেন সম্পূর্ণ গাছ গুলো কাটা হচ্ছে তা আমাদের কারোই বোধগম্য নয়। চকরিয়া হতে আলীকদম পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার রাস্তায় একইভাবে বে-বিচারে হাজার হাজার গাছ কাটা হচ্ছে। কর্তনকৃত গাছ গুলো নিলাম দিলে বা সরকারী উদ্যোগে বিক্রি করা হলে সরকার কোটি টাকা রাজস্ব পেত। লামা সওজ অফিসের কিছু দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তা কর্মচারীদের লোভের কারণে সরকার কোটি টাকা রাজস্ব হারিয়েছে।

এদিকে বুধবার গভীর রাতে গাছ চোররা হরিণঝিরি এলাকার রাস্তার পাশের একটি বড় একাশি গাছ কেটে ফেলে। গাছটি বিদ্যুতের ১১হাজার বোল্টের তারের উপরে পড়ে বিদ্যুতের লাইন ছিড়ে গতরাত থেকে আলীকদম ও লামা উপজেলায় বিদ্যুত্ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। পরবর্তীতে সকালে সওজ বিভাগের ও বিদ্যুত্ অফিসের লোকজন সহ গাছটি অপসারন করে।

লামা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের ছাগলখাইয়া এলাকার মোঃ রাসেল পিতা আব্দুল আজিজ জানায়, সওজ বিভাগের লামা অফিসের নাইট গাইড মোঃ কামাল ৫ জানুয়ারী শিলেরতোয়া রাস্তার পাশের ২টি বড় রেন্ডিকড়ি গাছ আমার কাছে ১হাজার টাকা বিক্রি করে। আমি গাছ ২টি কেটে ব্রিকফিল্ডে বিক্রি করি।

লামা সওজ অফিসের সুপারভাইজার মোঃ আবু তাহের গাছ কাটার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দিনে রাতে যে যার মত গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। বেশির ভাগ গাছ রাতের বেলায় কাটা হচ্ছে। এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমরা টাকা নিয়ে কারো কাছে গাছ বিক্রি করিনি।

সওজ বিভাগের বান্দরবানের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ইউছুপ এ বিষয়ে বলেন, বিদ্যুত্ লাইন সম্প্রাসারণের জন্য কাটা সকল গাছ বা লাকড়ি সংরক্ষণ করতে বলা হয়েছে। রাস্তার পাশের গাছ যেই কাটে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমার কোন স্টাফ গাছ কাটার সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

%d bloggers like this: