Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / বিজ্ঞান, তথ্য ও প্রযুক্তি / শব্দের চেয়ে দ্বিগুণ গতিতে চলবে নাসার বিমান

শব্দের চেয়ে দ্বিগুণ গতিতে চলবে নাসার বিমান

29-3-2016   - 0006   (Biman)

বিশ্বের সবচে দ্রুতগামী বিমান ছিল কনকর্ড। ১৯৭৬ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত আকাশে উড়েছে এই বিমান। এই বিমানের সর্বোচ্চ গতি ছিল ঘণ্টায় ১ হাজার ৩৫৪ মাইল৷ অর্থাৎ শব্দের গতির (ঘণ্টায় ৭৬৮ মাইল) প্রায় দ্বিগুণ। এবার কনকর্ড বিমানের চেয়েও দ্রুত গতির বিমান বানানোর পরিকল্পনা নিয়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা।

শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিতে বিমান চড়ার আগ্রহী যাত্রী আছেন অনেক৷ সেই চাহিদা মেটাতে নাসা এবার এমন বিমান তৈরি করতে চায় যেটা দ্রুতগতিতে যাওয়ার পাশাপাশি শব্দ করবে কনকর্ডের চেয়ে অনেক কম। বিমানটি দেখতে কেমন হবে, শিল্পীর চোখ দিয়ে তার একটি ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছে নাসা। তবে আসল বিমানের নকশা কে করবে তা ঠিক করতে নির্মাতাদের কাছ থেকে নকশা চাওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে লকহিড মার্টিনকে বেছে নিয়েছে নাসা।

কোয়াইট সুপারসনিক টেকনোলজি বা কিউএসএসটি বিমানের নকশা তৈরির জন্য আগামী ১৭ মাসে নাসার কাছ থেকে ২০ মিলিয়ন ডলার পাবে লকহিড। নাসা আশা করছে, প্রয়োজনীয় অর্থ পেলে ২০২০ সালের মধ্যে এই বিমান পরীক্ষামূলকভাবে আকাশে উড়তে পারে৷

এই বিমানের নাম ‘সুপারসনিক গ্রিন মেশিন’। ওড়ার সময় যেন শব্দ (সনিক বুম) কম হয় সেই জন্য প্লেনের পিছনের পাখায় ‘উলটো ভি’ এর মতো যে জিনিসটি দেখা যাচ্ছে সেখানে সুপারসনিক জেট ইঞ্জিন বসিয়েছে লকহিড। নাসার কমিটির সামনে ২০১০ সালে এই নকশা পেশ করেছিল লকহিড। সেসময় তারা জানিয়েছিল, ২০৩০-৩৫ সালের দিকে বিমানটি আকাশে উড়তে পারে।

সূত্র:বাংলামেইল২৪ডটকম,ডেস্ক।

%d bloggers like this: