Home / প্রচ্ছদ / শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৫ তম শুভ আবির্ভাব উদ্যাপিত

শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৫ তম শুভ আবির্ভাব উদ্যাপিত

শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৫ তম শুভ আবির্ভাব উদ্যাপিত

শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৫ তম শুভ আবির্ভাব উদ্যাপিত

বিপুল উৎসাহ্, উদ্দীপনা ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আধ্যাত্ম মহাযোগী শিবকল্পতরু শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৫ তম শুভ আবির্ভাব উৎসব ৪ ও ৫ সেপ্টেম্বর ২ দিনব্যাপী মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কক্সবাজার শ্রীশ্রী লোকনাথ সেবাশ্রম প্রাঙ্গণে আবির্ভাব উৎসব উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি এডঃ বাপপী শর্মার সভাপতিত্বে ও লোকনাথ সেবাশ্রম কার্যনির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব মল্লিক শুভ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত মহতী অনুষ্ঠানের মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জলনের মাধ্যমে শুভ উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সম্মানিত সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ বিনয় পাল। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-রামু আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি এডঃ রনজিত দাশ, সাধারণ সম্পাদক- বাবুল শর্মা, কক্সবাজার লোকনাথ সেবাশ্রম কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি- রাজ বিহারী দাশ, জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক- অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, কক্সবাজার পৌরসভার কাউন্সিলর- হেলাল উদ্দিন কবির, জাবেদ মোঃ কায়সার নোবেল, সদর পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি- দীপক দাশ, শহর পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি- ডাঃ চন্দন কান্তি দাশ, সাধারণ সম্পাদক- স্বপন গুহ সহ স্থানীয় সনাতনী নেতৃবৃন্দ। উক্ত মহতী অনুষ্ঠানের প্রধান ধর্মীয় আলোচক হিসেবে আলোকপাত করেন- অধ্যাপক অজিত দাশ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন- আবির্ভাব উৎসব উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মিটন পাল। অনুষ্ঠানে বক্তাগণ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে যাবতীয় ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে নির্ভয়ে উদ্যাপন করার অনুরোধ করেন।

যেকোন প্রকার ধর্মীয় স্বার্থ নিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারীদের কোন প্রকারে ছাড় দেওয়া হবেনা মর্মে জানান এবং শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার নীতি ও আদর্শকে ধারণ করে এই মানব সমাজকে ঐক্যের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। প্রধান অতিথি শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার মন্দির উন্নয়নের জন্য ১ (এক) লক্ষ টাকা অনুদান ঘোষণা করায় সনাতনী সম্প্রদায় ও মন্দির কর্তৃপক্ষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠান শেষে চট্টগ্রামের বিশিষ্ট নাট্য সংগঠন সপ্তর্ষি থিয়েটারের পরিবেশনায় ধর্মীয় নাটক ‘যেমন কর্ম তেমন ফল’ অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: