Home / প্রচ্ছদ / স্ত্রীর দায়ের করা মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা হলেও ধরাছোয়ার বাইয়ে স্বামী

স্ত্রীর দায়ের করা মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা হলেও ধরাছোয়ার বাইয়ে স্বামী

Kutubdiaনিজস্ব প্রতিনিধি, কুতুবদিয়া: স্ত্রীর দায়ের করা ২ মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ১ মাস অতিবাহিত হলেও আসামী গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে পুলিশের পাশে পাশে ঘুরাফেরা করলেও পুলিশ রহস্যজনক কারনে গ্রেফতার করছেনা। এত করে মামলার বাদি হতাশ হয়ে পড়েছেন। জানাযায়,নোয়াখালী জেলার কবির হাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের বর্তমানে কর্মরত নৈশ প্রহরী মোঃ রফিকের বিরুদ্ধে তার ২য় স্ত্রী নারী নির্যাতন ও স্ত্রীকে মারধর করার দায়ে পৃথক ২ মামলায় গত ৭ জুন গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। কুতুবদিয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সুত্রে জানাগেছে দীর্ঘ ১যুগ ধরে কুতুবদিয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে নৈশ্য প্রহরী পদে কর্মরত থাকাকালীন গত ২০১৪ সালে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়নের মোঃ শাহাজাহান এর মেয়ে হাছিনা আকতার বিউটিকে ২য় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করেন। বিয়ের এক বছর যেতে না যেতে স্ত্রীকে মোটা অংকের যৌতুকের দাবীতে অমানষিক নির্যাতন শুরু করে গত ১৫ ফেব্রুয়ারী রাত ১০ টার সময় মারধর করে গুরুতর আহত করেন পাষান্ড স্বামী রফিক। এলাকাবাসী যৌতুক লোভী স্বামীর কাছ থেকে আহত স্ত্রী হাসিনা আকতার বিউটিকে উদ্ধার করে কুতুবদিয়া সরকারী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতের অবস্থা আশংকাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় নৈশ প্রহরী মোঃ রফিকের বিরুদ্ধে গত ১৮ ফেব্রুয়ারী তার ২য় স্ত্রী হাছিনা আকতার বিউটি কক্সবাজার নারী আদালতে মামলা দায়ের করেন। কক্সবাজার নারী আদালতের মামলা নং ৪৮৭/১৫। এছাড়াও হাছিনা আকতার বিউটিকে মারধর করার অপরাধে গত ৩ এপ্রিল কুতুবদিয়া থানায় মামলা রজু করেন। কুতুবদিয়া থানার মামলা নং ২/১৫। স্ত্রীর দায়ের করা ২ মামলায় গত ৭ জুন কুমিল্লা জেলার লাঙ্গলকোট উপজেলার উত্তর মগুয়া ভোলাইন বাজার এলাকার মৃত সুরুজ মিয়ার পুত্র নৈশ্য প্রহরী মোঃ রফিকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেন আদালত। এক পর্যায়ে স্বামী রফিক অত্যান্ত সুকৌশলে ২০১৫ সালের মার্চের ১২ তারিখ বদলির আদেশ পেয়ে ১ এপ্রিল নোয়াখালী জেলার কবির হাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে যোগদানের জন্য চলে যায়। এদিকে আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির কপি তার স্থায়ী ঠিকানায় ও বর্তমান কর্মস্থলে পাঠানো হলেও এখনো পর্যন্ত গ্রেফতার করেনি পুলিশ। গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে এলাকায় বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে ২ মামলার এ আসামী। এ ব্যাপারে বাদি হাছিনা আকতার বিউটি জানায়,পুলিশ মোটা অংকের উৎকুচ নিয়ে ২ মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত আসামীকে গ্রেফতার করছেনা। সে ওয়ারেন্টভূক্ত এ আসামীকে গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তি প্রদান করতে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

%d bloggers like this: