Home / বিনোদন ও সাংস্কৃতিক / সিনেমার সাহসী দৃশ্যে স্বস্তিকা মুখার্জি

সিনেমার সাহসী দৃশ্যে স্বস্তিকা মুখার্জি

স্বস্তিকা মুখার্জি, টলিউডের জনপ্রিয় একজন অভিনেত্রী। বড় পর্দায় পা রেখে খুব বেশি সময় নেয়নি এই অভিনেত্রী। রূপ আর অভিনয় দক্ষতায় নিজের জাত চেনান স্বস্তিকা। চরিত্রের প্রয়োজনে নিজেকে যেমন ভেঙেছেন তেমনি সাহসী দৃশ্যে অভিনয় করে সমালোচিত হয়েছেন বহুবার। আর ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেই প্রেমের সম্পর্কে জড়ান চিত্রনায়ক জিতের সঙ্গে। যদিও তা বেশিদিন টিকেনি। তারপর অভিনেতা পরমব্রত, নির্মাতা রাজ চক্রবর্তীসহ অনেকের সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জন শোনা গেছে।

স্বস্তিকাকে টলিউডে জায়গা করে দেয় ‘এক আকাশের নীচে’ এবং ‘প্রতিবিম্ব’-র মত মেগা সিরিয়ল। ২০০৩ সালে ‘হেমন্তের পাখি’ শিরোনামের সিনেমার মাধ্যমে প্রথম বড় পর্দায় পা রাখেন স্বস্তিকা।

মৈনাক ভৌমিকের টেক ওয়ান ছবিতে একটি দৃশ্যে নগ্ন হয়ে অভিনয় করেছিলেন স্বস্তিকা। আর তাই নিয়ে শুরু হয়েছিল জোর গুজব। এই দৃশ্যে স্বস্তিকার দেহের সামনের অংশ পুরোপুরি নগ্ন ছিল। এই প্রথম বাণিজ্যিক বাংলা ছবি যেখানে অভিনেত্রীর শরীরের সামনের ভাগ পুরোপুরি নগ্ন অবস্থায় দেখানো হয়েছিল।

মৈনাক ভৌমিকের আর একটি ছবি ফ্যামিলি অ্যালবাম ছহিতে পাওলিকে চুমু খাওয়ার দৃশ্য নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছিলেন,” একজন অভিনেত্রী হিসেবে এই কাজটা না করলে জানতে পারতাম না যে চুমু খাওয়ার ক্ষেত্রে ছেলে বা মেয়ে ততটা গুরুত্বপূর্ণ নয় যতটা গুরুত্বপূর্ণ আমার মন! আমার মন আদর করতে চাইছে এটাই সবচেয়ে সত্যি। বিশ্বাস করুন, মেয়ে বা ছেলের চুমুতে কোনও তফাত নেই।”

সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ছবি ‘শাহজাহান রিজেন্সি’-তে খুবই বোল্ড একটি চরিত্রে দেখা যাচ্ছে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়কে।

‘মাস্তান’ শিরোনামের সিনেমায় প্রথম কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন স্বস্তিকা।

‘মুম্বই কাটিং’-নামের এক সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন স্বস্তিকা। ২০১০ সালে মুক্তি পাওয়া সেই সিনেমার একাধিক পরিচালকের মধ্যে ছিলেন অনুরাগ কাশ্যপও।

পরিচালক দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যোমকেশ বক্সি ছবিতে সুশান্ত সিং রাজপুতের বিপরীতে অভিনয় করেছেন স্বস্তিকা।

সাহেব বিবি গোলাম ২০১৬ সালের একটি বাংলা চলচ্চিত্র। সাহেব বিবি গোলাম এই চলচ্চিত্রটি একটি থ্রিলার ধরনের চলচ্চিত্র।

শুধুমাত্র যৌন উত্তেজনা তৈরি করাই নয়, এই ছবিতে যৌনতাকে ছবির গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে। পাশাপাশি ছবিতে বিপ শব্দের ছড়াছড়ি রয়েছে।

‘আমি আর আমার গার্লফ্রেন্ডস’, ‘টেক ওয়ান’, ‘মাছ মিষ্টি অ্যান্ড মোর’, ‘হ্যালো কলকাতা’-র মত সিনেমায় সাহসী চরিত্রে অভিনয় করে বিশেষভাবে প্রশংসিত হন স্বস্তিকা।

তবে তাই হোক সিনেমায় স্বস্তিকার সাহসী দৃশ্য।

টলিউডের বড় পর্দা থেকে সিরিয়াল, মেগা সিরিয়াল স্বস্তিকা সব জায়গাতেই সফল হয়েছেন। এমনকি ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও সাফল্য পান স্বস্তিকা।

হৈ চৈ-এর ওয়েব শো ‘দুপুর ঠাকুরোপো’-তে বৌদির ভূমিকায় অভিনয় করে স্বস্তিকা এই প্ল্যাটফর্মের জনপ্রিয়তাকে আলাদা জায়গায় নিয়ে যান।

 

 

সূত্র:alkbmedia.com – ডেস্ক।

About admin

Leave a Reply