Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / চকরিয়ায় জন্মাষ্টমীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আওমীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী

চকরিয়ায় জন্মাষ্টমীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আওমীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী

জাতির জনককে হত্যার পর দুটি সামরিক সরকার ধর্মীয় গোঁড়ামি ছড়িয়ে দেশকে পিছিয়ে দেয়

মুকুল কান্তি দাশ; চকরিয়া :

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার। এই প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে অসম্প্রদায়িক চেতনা ছড়িয়ে দিয়ে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে বদ্ধ পরিকর শেখ হাসিনার নেতৃত্বধীন আওয়ামীলীগ সরকার। আর্থসামাজিকভাবে উন্নয়নের পথে থাকা মধ্যপ্রাচ্যের অনেক রাষ্ট্রের সম্পদের পতন ঘটেছে ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রাখতে না পারায়। সে অবক্ষয় থেকে অনেক রাষ্ট্র শিক্ষা নিয়েছেন। তাদের ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়ে পুরো দেশকেই সাংস্কৃতিকভাবে অসম্প্রদায়িকতার বীজ ছড়িয়ে দরিদ্র রাষ্ট্র বাংলাদেশ উন্নয়নমুখী করে বিশ্ব দরবারে আইডল হয়ে উঠেছেন। দেশের প্রত্যেক মানুষকে নিজে অসম্প্রদায়িক হওয়ার পাশাপাশি উত্তরসুরীদেরও ধর্মীয় গোড়ামী থেকে মুক্ত রাখতে শিক্ষা দিতে হবে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পরে দুটি সামরিক সরকার অম্প্রদায়িক চেতনা মুছে ফেলায় উন্নয়নে দেশ পিছিয়ে যায় এবং বেড়ে যায় ধর্মীয় হানাহানি।

তিনি আরো বলেন, কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়া সংসদীয় আসনটি আওয়ামীলীগের প্রাপ্য। জোটগত কারণে গতবার অন্য রাজনৈতিক দলকে এই আসনটি ছেড়ে দেয়া হলেও আগামী নির্বাচনে এই আসনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী নির্বাচন করার অধিক সম্ভাবনা। তিনি কোন প্রার্থীর নাম উল্লেখ না করে বলেন বিগত সময়ে বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও-পোড়াও ঠেকাতে যে নেতা মাঠে ছিলেন এবং জনপ্রিয়তা বিবেচনায় নিয়ে ওই নেতাকে মনোনয়ন দেয়া হবে।

সোমবার ১৪ আগষ্ট দুপুর ১টায় চকরিয়া কেন্দ্রীয় হরি মন্দিরে শুরু হওয়া তিনদিন ব্যাপী জন্মাষ্টমী মহোৎসবের উদ্ভোধনী অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

চকরিয়া ঋষি অদ্বৈতানন্দ পরিষদের সভাপতি ডাক্তার তেজেন্দ্র লাল দে’র সভাপতিত্বে ও চকরিয়া জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নারায়ন কান্তি দাশের সঞ্চালনায় অনুষ্টিত আলোচনা সভায় উদ্ভোধক ও বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র মো.আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম লিটু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী।

চকরিয়া জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদের সভাপতি  ও চকরিয়া প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুকুল কান্তি দাশের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- চিরিংগা হিন্দুপাড়া যুবকল্যান সমিতির সভাপতি ধনরঞ্জন দাশ, চকরিয়া হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের আহবায়ক রতন বরণ দাশ, চকরিয়া কেন্দ্রীয় হরি মন্দির উন্নয়ন কমিটির সভাপতি প্রদীপ কান্তি দাশ, চকরিয়া উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি তপন কান্তি দাশ, সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ।

উপস্থিত ছিলেন- চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. মিজানুর রহমান, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, জেলা আওয়ামী-যুবলীগের সহ-সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আবদুল মজিদ, কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত ওসমান, চকরিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর আয়ুবুল ইসলাম, রেজাউল করিম, উপজেলা যুবলীগের অর্থ-সম্পাদক আজিজুর হক, চকরিয়া পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি হাসনগীর হোসাইন, চকরিয়া নিত্যানন্দ গীতা সংঘের স্থায়ী কমিটির সভাপতি শ্রীদুল রঞ্জন দাশ, নিত্যানন্দ গীতা সংঘের সভাপতি সুভাষ দাশ, সাধারণ সম্পাদক নন্দরাম দাশ, চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম চৌধুরী, চকরিয়া কেন্দ্রীয় হরি মন্দির মহোৎসব উন্নয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক মিলন কান্তি দাশ, অর্থ-সম্পাদক সমির দাশ, চকরিয়া পৌরসভা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি টিটু বসাক, চকরিয়া কেন্দ্রীয় হরি মন্দির উন্নয়ন কমিটির অর্থ-সম্পাদক সুজিত দাশসহ প্রমুখ।

সভা শেষে রং-বেরং এর প্লেকার্ড, ঘোড়ার গাড়ি সাজিয়ে, ঢাক-ঢোলের তালে নেচে-গেয়ে একটি বিশাল মঙ্গল শোভাযাত্রা চকরিয়া পৌরশহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

১৪ আগষ্ট শুরু হওয়া এই শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী মহোৎসব ১৭ আগষ্ট ভোরে পূর্ণাহুতির মাধ্যমে শেষ হবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: