রোহিঙ্গা নেতা হত্যা : আরসা প্রধানসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা : গ্রেফতার ৫

হুমায়ুন কবির জুশান; উখিয়া :
কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী আশ্রয়শিবিরে (ক্যাম্প-৮ পশ্চিম) রোহিঙ্গা মাঝি মোহাম্মদ হোসেন ওরফে শফিককে (৩০) হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এজাহারনামীয় পাঁচ আসামিকে গেফতার করেছে।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে নিহতের ছোট ভাই নুর হাশিম বাদী হয়ে উখিয়া থানায় মামলাটি করেন। মামলায় মিয়ানমারের সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান স্যালভেশন আর্মির (আরসা) প্রধান কমান্ডার আতাউল্লাহ আবু আম্মার জুনুনিসহ ৪৩ জনের নাম উল্লেখসহ ১৫ থেকে ২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

এজাহারে আরসাপ্রধান আতাউল্লাহকে ২ নম্বর আসামি করা হয়েছে। ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায়। ১ নম্বর আসামি করা হয়েছে আরসার ক্যাম্প কমান্ডার ও বালুখালী ক্যাম্প-৮-এর বি-২৩ ব্লকের বাসিন্দা জোবায়ের আহমদকে।

শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতার আসামিরা হলেন— মোহাম্মদ জুবায়ের প্রকাশ বল্লা (২১), জুবায়ের আহমদ প্রকাশ কালা পুতু (৩৪), মো. জুবায়ের প্রকাশ রুবেল (২২), মোহাম্মদ সালাম (১৯) ও মোহাম্মদ আলী প্রকাশ কালা পোয়া (১৭)। সবাই উখিয়ার বালুখালী আশ্রয়শিবিরের বাসিন্দা।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২৬ ডিসেম্বর সকাল সোয়া ১০টার দিকে নিহত রোহিঙ্গা নেতা মোহাম্মদ বালুখালী আশ্রয় শিবিরের বি-১৬ ব্লকের মাহমুদ উল্লাহর দোকানের সামনে অবস্থান করছিলেন। এ সময় ৫০-৬০ জনের একদল রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী তার ওপর হামলা করে। একপর্যায়ে মোহাম্মদকে তুলে নিয়ে পাশের ডিআরসি পুষ্টি কার্যালয়ের ভেতরে নিয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে। তার গলা, বুক, পিঠ ও কোমরে চারটি গুলি লাগে। কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে ২৭ ডিসেম্বর রাতে আশ্রয়শিবিরে তাকে দাফন করা হয়।

ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) সকালে ওই আশ্রয়শিবিরের বি-১৬ ব্লকের সামনে মোহাম্মদকে গুলি করে হত্যা করা হয়। তিনি আশ্রয়শিবিরের বি-৩২ ব্লকের বাসিন্দা ও ক্যাম্প-৮ পশ্চিম অংশের বি ব্লকের প্রধান মাঝি (নেতা) ছিলেন। হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত ও মামলার এজাহারনামীয় পাঁচজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে আশ্রয়শিবির ও আশপাশের পাহাড়ি জঙ্গলে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উখিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) অলিউর রহমান জানান, গ্রেফতার পাঁচ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) কক্সবাজার জ্যেষ্ঠ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করবে পুলিশ। এরপর রোহিঙ্গা নেতা হত্যার নেপথ্যের কারণ জানা হবে।

Share

Leave a Reply

http://coxview.com/wp-content/uploads/2022/07/coxview.com-Footar-09-07-2017-JPG.jpg
%d bloggers like this: