Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / জাতীয় / সিলেট যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

সিলেট যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

http://coxview.com/wp-content/uploads/2020/08/Shekh-Hasina.jpgঅনলাইন ডেস্ক :
বন্যা পরিস্থিতি এবং বন্যার্ত মানুষের দুর্দশা সরেজমিন দেখতে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা পরিদর্শনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, মঙ্গলবার (২১ জুন) সকাল ৮টায় হেলিকপ্টারে এসব অঞ্চল পরিদর্শনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করবেন। একইসঙ্গে সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতিও পরিদর্শন করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী এসব অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শনের পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের সহমর্মিতা জানাবেন। একই সঙ্গে ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের কর্মসূচিতে অংশ নেবেন তিনি।

রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে সরকার প্রধান জানান, সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যার খবর নিয়মিত রাখছেন তিনি এবং পরিস্থিতি মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি তার সরকারের রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের প্রশাসন, আমাদের সেনাবাহিনী, নৌ-বাহিনী, বিমান-বাহিনী থেকে শুরু করে আমাদের অন্য সব প্রতিষ্ঠানকে আমি মানুষকে উদ্ধার করা, তাদের ত্রাণ দেওয়া … সব ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি।”

এর আগে গত সোমবার (২০ জুন) বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শনে গেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. কামরুল হাসান।

প্রসঙ্গত, ভারতের আসাম ও মেঘালয়ের রেকর্ড বৃষ্টি চরম দুর্ভোগ নিয়ে এসেছে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকায়। মৌসুমের তৃতীয় দফা বন্যায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে সিলেট ও সুনামগঞ্জের অন্তত ৪০ লাখ মানুষ। বন্যায় পানিবন্দি মানুষের মধ্যে হাহাকার ও আর্তনাদ চলছে। আশ্রয়ের খোঁজে পানি-স্রোত ভেঙে ছুটছে মানুষ। শিশুরা বাদে বেশি বিপদে আছেন বয়স্করা। আটকেপড়াদের উদ্ধার করে আশ্রয়কেন্দ্রে নেয়া হচ্ছে। যেখানেই শুকনো ও উঁচু জায়গা পাওয়া যাচ্ছে সেখানেই আশ্রয় নিচ্ছে মানুষ।

সিলেট-সুনামগঞ্জে যে বন্যা চলছে তা ১২২ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান।

অন্যদিকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের (এফএফডব্লিউসি) মুখপাত্র মো. আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেছেন, ২০০৪ সালের বন্যার পর থেকে এটি হচ্ছে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি এ দুই জেলায় স্বেচ্ছাসেবীদের পাশাপাশি সেনাবাহিনীও উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: