Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / অপরাধ, আইন-আদালত / চকরিয়ায় ফের সক্রিয় মোটর সাইকেল চোর

চকরিয়ায় ফের সক্রিয় মোটর সাইকেল চোর

প্রতিকী ছবি

 

মুকুল কান্তি দাশ; চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে মোটর সাইকেল চোরেরা। চলতি মাসে বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল চুরির ঘটনা ঘটে। কিন্তু চুরি হওয়া মোটর সাইকেল উদ্ধারে পুলিশের নেই কোনো তৎপরতা। ফলে, মোটর সাইকেল মালিকদের মাঝে এক প্রকার আতংক ও হতাশা বিরাজ করছে। উপজেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রতিনিয়ত কারো না কারো মোটরসাইকেল চুরি হচ্ছে। এমনকি রাতে বাসার কলাপসিবল গেটের তালা ভেঙ্গে, আবার কখনও দিন দুপুরে বিভিন্ন মার্কেট, ব্যাংক-বীমা ও অফিসের সামন থেকে সুকৌশলে মোটরসাইকেল চুরি করে নিয়ে যায় সংঘবদ্ধ চোরের দল। আর এসব দলের পিছনে রয়েছে প্রভাবশালী মহলের ইন্ধন রয়েছে।

এদিকে, মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটলেও চুরি হওয়া এসব মোটর সাইকেলের কোনো সন্ধান পায়নি পুলিশ। এমনকি চিহ্নিত কোনো চোরকেও আটক করতে পারেনি। চলতি মাসে বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল চুরির ঘটনা ঘটলেও ওইসব মালিকরা চোরদের ভয়ে এবং আইনী জটিলতার কারণে থানায় অভিযোগ দিয়ে চাইনা। ফলে মোটরসাইকেল চুরির আতংকে রয়েছেন গাড়ির মালিকরা।

জানা যায়, গত ১৭ অক্টোবর রাত পৌনে আটটার দিকে পৌরশহরের হাসপাতাল সড়কস্থ সরওয়ার ম্যানশন থেকে (ঢাকা মেট্টো-হ-২৬-০৩৩৮) নাম্বারের টিভিএস মোটর সাইকেলটি চুরি হয়। এ ঘটনায় মোটর সাইকেল মালিক নুভিস্থা ফার্মার চকরিয়ার পিপিও থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। কয়েকদির পূর্বে সরকারী বালিকা বিদ্যালয় সড়কস্থ ওশান সিটি মার্কেটের সামনে থেকে চুরি হয় আরো একটি মোটর সাইকেল। তবে এঘটনায় মোটর সাইকেল মালিক থানায় কোন ডায়েরী করেছেন কিনা জানা যায়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নুভিস্থা ফার্মার ওই পিপিও বলেন, ওইদিন সন্ধ্যায় মোটর সাইকেল্িট বাসার নিচে রেখে অফিসে যায়। আধ ঘন্টা পর ফিরে এসে দেখি আমার মোটর সাইকেলটি নেই। মোটর সাইকেলটি চুরি হওয়ার ফলে আমি আর্থিকভাবে খুব ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। মোটর সাইকেল চুরির বিষয়ে থানায় জিডি করলেও এখনো কোন সন্ধান পায়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চকরিয়ায় বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল চোরের দল রয়েছে। বিশেষ করে মার্কেট, অফিস ও বাসা থেকে মোটর সাইকেল চুরি করে থাকে এসব চোরেরা। মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেটরা মোটর সাইকেল চুরিতে বেশ পারদর্শী। তারা ৪ থেকে ৫ মিনিটের মধ্যে মোটর সাইকেলের লক ভেঙ্গে চুরি করতে সক্ষম। বিশেষ করে এরা নতুন মোটর সাইকেল চুরি করে থাকে বলেও জানা গেছে।

অভিযোগ রয়েছে, এসব মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেটের পিছনে রয়েছে প্রভাবশালীরা। পুলিশ মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেট সদস্যদের গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠালেও পরবর্তীতে ওইসব প্রভাশালী মহল তাদের আদালত থেকে জামিন নিয়ে জেল থেকে ছাড়িয়ে আনে। পরে আবারো শুরু করে চুরি।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো.মিজানুর রহমান বলেন, মোটর সাইকেল চুরির ঘটনায় কয়েকটি জিডি আমাদের হাতে রয়েছে। মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেট সদস্যদের আটক করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি মোটর সাইকেল চোররা অচিরেই আমাদের ফাঁদে আটকাবে। অপেক্ষা করুন।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, গতকালকেও আমরা পাশ্ববর্তী উপজেলা মহেশখালী থেকে একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করেছি। চুরি হওয়া মোটর সাইকেল উদ্ধার ও চোরদের ধরতে বেশ কয়েকটি টিম গঠন করা হয়েছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: