টেকনাফ থেকে অভিনব কৌশলে ইয়াবা পাচারকালে মহিলাসহ আটক ২

Yabaগিয়াসউদ্দিন ভুলু, টেকনাফ:

ব্রা’র ভেতর লুকিয়ে টেকনাফ থেকে অভিনব কৌশলে ইয়াবা পাচারকালে ১৯ আগস্ট সকালে মহিলাসহ ২ জন পাচারকারীকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তগণ। আটককৃতরা হচ্ছে- টেকনাফ পুরান পল্লানপাড়া (ছালে আহমদের ভাড়াটিয়া) মৃত বাহাদুর মিয়ার মেয়ে মোঃ রফিক প্রকাশ নুর হাকিমের স্ত্রী শারমিন আক্তার (৩৫) ও কক্সবাজার সদর উপজেলার খরুলিয়া হাজী ইব্রাহীম খলিলুল্লাহর পুত্র মোঃ জোবায়ের (২৯)।

তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ২৫০টি এ্যামফিটামিন মিশ্রনে প্রস্তুত ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ সার্কেলের পরিদর্শক মোহাম্মদ ইব্রাহিম খানের নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে টেকনাফের হ্নীলা স্টেশন বেবীটেক্সী স্ট্যান্ডের সামনে রাস্তার উপর থেকে ইয়াবাসহ তাদেরকে আটক করা হয়।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর টেকনাফ সার্কেলের পরিদর্শক মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান বলেন- “গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিভাগীয় উপ পরিদর্শক সেন্টু রঞ্জন নাথ, সহকারী উপ পরিদর্শক মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সিপাই মোঃ কামাল হোসেন, মুহাম্মদ খোরশেদ আলম ও ২ নং মহিলা আনসার ব্যাটালিয়নের নং-১৯১৬৮৬৮ সহযোগে রেইডিং পার্টি গঠন করে টেকনাফ মডেল থানাধীন হ্নীলা বাজার বেবীটেক্সী স্ট্যান্ডের সামনে রাস্তার উপর ডিউটি করা কালীন সকাল ৭ টায় আসামী শারমিন আক্তার (৩৫) ও মোঃ জোবায়ের (২৯) উক্ত স্থানে আসলে সংবাদের বর্ণনা মোতাবেক আটক করি। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত মোঃ কামাল হোসেন ইয়াসমিন ও মোঃ জোবাইরকে সাক্ষী হিসেবে নিয়ে মহিলা আনসার ইয়াসমিন এর দ্বারা আসামী শারমিন আক্তার (৩৫) এর দেহ তল্লাশী করিয়ে তার পরিহিত কামিজের নীচে বুকে ব্রার ভিতর ১৫টি স্কচটেপ দ্বারা মোড়ানো পলি প্যাকেটে এ্যামফিটামিন মিশ্রনে প্রস্তুত মাদকদ্রব্য যার কথিত নাম ইয়াবা ট্যাবলেট প্রতি প্যাকেটে ৫০টি করে ৭৫০টি ওজন ৭৫ গ্রাম এবং আসামী মোঃ জোবায়ের (২৯) এর দেহ তল্লাশী করে তার পরিহিত জিন্স প্যান্টের সামনের ডান ও বাম পকেট থেকে ৫টি করে ১০টি স্কচটেপ দ্বারা মোড়ানো পলি প্যাকেটে এ্যামফিটামিন মিশ্রনে প্রস্তুত মাদকদ্রব্য যার কথিত নাম ইয়াবা ট্যাবলেট প্রতি প্যাকেটে ৫০টি করে ৫০০টি ওজন ৫০ গ্রাম উদ্ধার করি।

ঘটনাস্থল থেকে আসামী শারমিন আক্তার (৩৫) ও হাফেজ মোঃ জোবায়ের (২৯) কে গ্রেফতার করি। আসামী আলামত ও রেইডিং পার্টিসহ সার্কেল অফিসে আসি। আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে নিজ নিজ অপরাধ স্বীকার করেন। জব্দকৃত ইয়াবার বাজারমূল্য ৩ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৯০ সনের ১৯ (১)এর ৯ (খ) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধে টেকনাফ মডেল থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।”

Share

Leave a Reply

http://coxview.com/wp-content/uploads/2022/07/coxview.com-Footar-09-07-2017-JPG.jpg
%d bloggers like this: