Home / প্রচ্ছদ / সাম্প্রতিক... / অপরাধ, আইন-আদালত / ফলোআপ- ঈদগাঁওতে প্রতিপক্ষের হামলায় মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত রমিজ : নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার লুট : চারজনের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের

ফলোআপ- ঈদগাঁওতে প্রতিপক্ষের হামলায় মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত রমিজ : নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার লুট : চারজনের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের

 

নিজস্ব প্রতিনিধি; ঈদগাঁও :

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওতে প্রতিপক্ষের হামলায় রমিজ নামের এক অসহায় ব্যক্তির মাথায় গুরুতর জখমসহ নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করার অভিযোগ উঠেছে। যে কোন মুহুর্তে অপ্রীতিকর সংঘর্ষের আশংকা প্রকাশ করেন এলাকাবাসী। উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ ও কামনা করেছেন তারা।

প্রাপ্ত তথ্য জানা যায়, ৬ নভেম্বর সকাল আটটার দিকে ঈদগাঁও ইউনিয়নের মাছুয়াখালী মুরাপাড়া ট্রান্সপোর্ট কবরস্থান সংলগ্ন নতুন স্কুলের পার্শ্ববতী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, ট্রান্সপোর্ট হয়ে মাছুয়াখালী যাতায়াত সড়কের সন্নিকটে উপরোক্ত স্থানে দীর্ঘবছর ধরে একটি জায়গা স্থানীয় মৃত আলী ছাত্তারের পূত্র রমিজ আহমদের দখলে রয়েছে। প্রতিপক্ষরা এ জায়গার প্রতি লোলুপদৃষ্টি দিয়ে আসছে বহুকাল ধরে। অবশেষে কোথাও সুবিধা করতে না পারায় পরিশেষে ওই জায়গায় মসজিদের জায়গা আছে বলে জোর করে দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠে। এ জায়গাটির বিষয়ে নেতৃস্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা পূর্বে থেকে ভাল ভাবে অবগত রয়েছে। এমনকি প্রতিপক্ষরা ওই স্থানে গাছের চারা রোপন ও ঘিরাবেড়া দিয়ে ফেলেছে দিনদুপুরে। এ ঘটনার কেন্দ্র করে গত সোমবার সকালে অতর্কিত ভাবে প্রতিপক্ষ নজির আহমদ ও তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস রমিজের বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে অনধিকারভাবে প্রবেশ করে রমিজ আহমদকে লাঠি ও লোহার রড দিয়ে শক্ত ভাবে মাথায় আঘাত করে মাথা ফাটার পর হাত ভেঙ্গে দেয়। পরর্বতীতে রমিজের স্ত্রী আনোয়ারা তাতে বাঁধা দিলে তাকেও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ পূর্বক মারধরসহ থানায় মামলা না করার হুমকি ধমকি প্রর্দশন করতে করতে বাড়ী ত্যাগ করে। অন্যায় ভাবে প্রবেশ করে হামলাকারীরা রমিজ আহমদের বাড়ীতে থাকা স্বর্ণালংকার ও গাড়ী মেরামতের জন্য জমানো ১৫/২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় বলে এজাহার সূত্রে প্রকাশ। পাশাপাশি বাড়ীর উঠানে থাকা সিএনজি গাড়ীটি ও ভাংচুর করে।

স্থানীয়রা জখমপ্রাপ্ত রমিজকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করে। তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে চমেকে প্রেরণ করা হয়। আহত রমিজের পূত্র আবদুল মান্নান বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ নজির আহমদ, নুরুল হাকিম, মোহছেনা ও জান্নাতুল ফেরদৌসের বিরুদ্ধে একটি এজাহার দায়ের করে মডেল থানায়।

মান্নান আরো জানান, এই জমি সংক্রান্ত ঘটনায় পূর্বেও আমার পিতার উপর নির্মম হামলা চালানো হয়েছিল, জমি কেটে নেওয়ার উদ্যেশ্যে। তদন্ত কেন্দ্রে বেশ কয়েকবার নোটিশ দিয়ে প্রতিপক্ষদের ডাকানো হয়েছিল। এমনকি ইউপি চেয়ারম্যান, স্থানীয় মেম্বারসহ এলাকার লোকজন উক্ত জায়গার বিষয়ে অবগত আছে। ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে দু’পক্ষের মৌখিক ভাবে বিচারাধীন থাকার পরও হঠাৎ করে পূর্ব পরিকল্পিত বাড়ীর ভেতরে হামলা আসলে দু:খজনক। এ জঘন্যতম হামলার সুষ্ঠু বিচার দাবী করছেন তার পুত্রসহ আত্মীয় স্বজনরা।

এ ব্যাপারে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ খায়রুজ্জামানকে অবগত করা হয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয় মেম্বার কামাল উদ্দিন ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন।

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: