বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৯:১৮ অপরাহ্ন

বেতের লাঠি নয় পুলিশের হাতে থাকবে ব্যাটন

বেতের লাঠি নয় পুলিশের হাতে থাকবে ব্যাটন

বেতের লাঠি নয় পুলিশের হাতে থাকবে ব্যাটন

বেতের লাঠি নয় পুলিশের হাতে থাকবে ব্যাটন

বেতের লাঠির বদলে পুলিশ বাহিনীর হাতে নতুন সংযোজন হিসেবে আসছে রাবার ও ফাইবারের তৈরি পুলিশ ব্যাটন নামক উন্নতমানরে লাঠি। চীন থেকে ২০ হাজার ব্যাটন আনার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। মাঠ পুলিশ থেকে শুরু করে উর্দ্ধতন কর্মকর্তার হাতে শীঘ্রই দেখা যাবে এই লাঠি। এর মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটবে এই বাহনিীর ব্যবহৃত দেড়’শ বছরের ঐতিহ্যবাহী বেতের লাঠির।

নতুন লাঠিগুলো কেনা হচ্ছে চীনের সরঞ্জাম উত্পাদনকারী একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে। অত্যাধুনিক এই লাঠিগুলোর মধ্যে রয়েছে স্পাইক ব্যাটন, সাইড হ্যান্ডেল ব্যাটন, থ্রিটিয়ার্ড ব্যাটন, টেলিস্কোপিক ব্যাটন, নাইলন ব্যাটন ও এক্সপান্ডবেল ব্যাটন।

পুলিশ হেডকোয়ার্টারের একটি সূত্র জানায়, এই বাহিনীর সর্বাধিক ব্যবহৃত সরঞ্জাম হচ্ছে বেতের লাঠি, ফলে প্রতিবছর কয়েক লাখ পিস বেতের লাঠি কিনতে হয়। পুলিশের নিরস্ত্র কনস্টেবল থেকে শুরু করে আইজিপি পর্যন্ত সবার জন্য বরাদ্দ থাকে বেতের লাঠি। ১৮৬১ সালে ইস্টইন্ডিয়া কোম্পানির অধীনে পুলিশ বাহিনী গঠনের পর থেকে এ বেতের লাঠির প্রচলন শুরু হয়। ১৯৪৭ সালের পর পূর্ব পাকিস্তান পুলিশ ও স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ পুলিশের সর্বস্তরের সদস্যরা বেতের লাঠি ব্যবহার করে আসছেন। আইজি, অতিরিক্ত আইজি, ডিআইজিসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের জন্যও একটি করে বেতের লাঠি বরাদ্দ থাকে। এটা এক ধরনের ঐতিহ্যে রূপ নিয়েছে।

থানা ও টহল পুলিশ ছাড়াও ট্রাফিক ও দাঙ্গা পুলিশও বেতের লাঠি ব্যবহার করে। উপমহাদেশে পুলিশের ১৫৪ বছরের ইতিহাসে বেতের লাঠি তাদের ঐতিহ্য এবং অন্যতম সরঞ্জাম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে তাল মিলিয়ে এখন বেতের লাঠিকে বিদায় জানাতে চলেছে বাংলাদেশ পুলিশ। তার স্থান দখল করে নিচ্ছে উন্নত প্রযুক্তিতে তৈরির লাঠি। এসব লাঠি টেকসই, ওজনে হালকা এবং বহনে ও ব্যবহারে সুবিধাজনক। তাই বেতের লাঠির বদলে নতুন আনা ব্যাটন অপরাধ দমনের ক্ষেত্রে আরও বেশি কার্যকর হবে বলে তারা মনে করেন।

উন্নত বিশ্বে কোনো দেশেই পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা বেতের লাঠি ব্যবহার করে না। তারা রাবার ও ফাইবার অথবা স্টিলের তৈরি উন্নতমানের ব্যাটন ব্যবহার করেন। তাই পুলিশকে আধুনিকায়নের অংশ হিসেবে সদরদফতর এসব ব্যাটন নিয়ে আসছে। এসব লাঠি অনেক টেকসই। একটি বেতের লাঠি কিনতে ব্যয় হয় ১৫০ টাকা। কিন্তু টেকে কম। অন্যদিকে প্রতিটি ব্যাটনের দাম পড়বে সাড়ে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা। তবে বেতের লাঠির চেয়ে এগুলো ব্যবহার করা যাবে অনেক বেশি দিন।

এতে প্রকারান্তরে এ খাতে ব্যয় সাশ্রয় হবে। ভবিষ্যতে আরো উন্নতমানের ব্যাটন আমদানি করা হবে বলে পুলিশ সদরদফতরের সহকারী পুলিশ সুপার (ইকুইপমেন্ট) আবদুল্লাহেল কাফি জানান।

– ব্রেকিংনিউজডটকম, ডেস্ক।

https://www.facebook.com/coxviewnews

Design BY Hostitbd.Com